সাংবাদিক দম্পতি খুনের ঘটনায় বাংলাদেশসহ বিশ্বজুড়ে তোলপাড়

শনিবার ঢাকার ইন্দিরা রোডে সাংবাদিক দম্পতি, মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক সাগর সারোয়ার ও এটিএন বাংলার সিনিয়র রিপোর্টার মেহেরুন রুমির খুনের ঘটনায় বাংলাদেশসহ বিশ্বজুড়ে হতবাক হয়ে গেছে।

বিশ্বজুড়ে চলছে আলোচনা। মুহূর্তের মধ্যে ঘটনাটি ‘টক অব দ্যা ওয়ার্ল্ড’ তে পরিণত হয়েছে।


তবে ঘটনার প্রায় ৭ ঘণ্টা কেটে গেলেও পুলিশ এ সম্পর্কে স্পষ্ট কিছুই বলতে পারছে না। এমনকি ধারণাও করতে পারছে না কিভাবে এ খুনের ঘটনা ঘটেছে। তাদের দাবি, বাড়িতে খুনের আলামত লক্ষ্য করা গেছে। তবে বাংলাদেশসহ প্রবাসী বাঙ্গালীর এখন জানতে চাইছে, কিভাবে এবং কেন বাংলাদেশে এ ধরনের সাংবাদিক খুনের নৃশংস ঘটনা ঘটল।


এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন দাবি করেছেন, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে অপরাধীদের গ্রেফতার করা হবে।
এদিকে, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর দাবি করেছেন, “দেশ বধ্যভূমিতে পরিণত হয়েছে। সরকার মানুষকে স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি দিতে পারছে না।” এ ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমেদ। নিহত সাংবাদিক দম্পতির সহকর্মী ও সিনিয়র সাংবাদিক সুপন রায় বলেছেন, “খুনের ঘটনা পরিকল্পিত।”


অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, “সাংবাদিক দম্পতির মৃত্যুতে দেশের ক্ষতি হয়েছে।” ডিএমপি কমিশনার বেনজির আহমেদ বলেছেন, “পুলিশ অপরাধীদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে।” পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, “পরিচিত কেউ এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।” শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, “সাংবাদিক দম্পতির মৃত্যুতে ইলেকট্রনিক মিডিয়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।”


সরকারের জ্বালানি উপদেষ্টা তওফিক-ই-ইলাহী বলেন, “সাংবাদিক হত্যার ঘটনায় জাতির যে ক্ষতি হয়েছে, তা পূরণ হবে না।”

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

‘রামগতি উৎসব’

পারস্পরিক ভালোবাসার অনুপম দৃষ্টান্ত হয়ে রইল ‌‘রামগতি উৎসব’

সুলতান মাহমুদ আরিফ :: উৎসাহ, উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শুক্রবার (২১ সেপ্টেম্বর) সফলতার সাথে ...