ব্রেকিং নিউজ

সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে হলে

সম্পর্ক ডেস্ক নিউজ :: অনেকেই বলেন সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে গেলে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়। আবার অনেকে এও বলেন, সম্পর্ক টিকিয়ে রাখা মোটেও জটিল কোনো কাজ নয়। ভুলগুলি পড়ুন ও এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন:

সম্পর্ক যন্ত্রণা দিচ্ছে আপনাকে: স্বাস্থ্য মনোবিজ্ঞানীদের ভাষ্যমতে, আমাদের শরীরের ৭০ শতাংশ শক্তি ক্ষয় হয় আবেগজনিত কারণে। সম্পর্কে টানাপোড়েন তৈরি হওয়ার প্রথম কারণ হচ্ছে আপনার সঙ্গীর সাথে দেখা করার পর আপনার কি ধরনের অনুভূতি হয় তার ওপর। যখন প্রথম দেখা করেন তখন কি খুব উদ্দীপ্ত হোন নাকি বেলুনের মতো চুপসে যান? যদি অস্বস্তি অনুভব করে তাহলে উচিৎ হবে সম্পর্ক থেকে দূরে থাকা। কারণ সম্পর্ক আপনাকে যত না দিবে তার চেয়ে বেশি নিবে।

অবিবেচক আচরণ: আপনি কি আপনার সঙ্গীকে কোনোকিছু বলা বা করার আগে ভাবুন? আপনার বেশিরভাগ কথা বা কাজ যদি পার্টনার পছন্দ না করেন তাহলে বুঝবেন সম্পর্কে ভারসাম্য রক্ষা হচ্ছে না।

সঙ্গীর মন জুগিয়ে চলা: আপনি কি সঙ্গীকে খুশি রাখতে সবসময় ব্যস্ত থাকেন? তার মন জুগিয়ে চলার চেষ্টা করেন? সঙ্গীর সাথে যখন বাইরে যাচ্ছেন তখন প্রয়োজনের চেয়ে বেশি মদ খাচ্ছেন? অথবা সঙ্গীকে খুশি করার জন্য ধুমপান করছেন? যদি সম্পর্ক চালাতে গিয়ে এসব নেতিবাচক অভ্যাস তৈরি করতে হয় তাহলে আপনাকে এ সম্পর্কের ব্যাপারে ভাবতে হবে।

সন্দেহ ও আধিপত্য: সন্দেহ ও আধিপত্য সম্পর্কের ক্ষেত্রে একধরনের হীনমন্যতা তৈরি করে।আপনি প্রথমেই খুশিই হবেন যখন দেখবেন প্রিয় মানুষটি আপনার প্রতি মুহূর্তের খোঁজখবর রাখছেন। কিন্তু একটা সময় দেখবেন এই অতিরিক্ত খোঁজখবরের ব্যাপারটি আপনার যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কোনো কাজই ভালভাবে করতে পারছেন না। একটু পর পরই ফোন বেজে উঠছে। এই ব্যাপারটি সম্পর্কের জন্য মোটেও ভাল নয় বরং এটি প্যানোরিয়া বা ডিলুসনাল ডিজঅর্ডারের মত মানসিক সমস্যাও তৈরি করতে পারে।

বার বার অতীত মনে করিয়ে দেওয়া: তুমি এই ব্যাপারটা সবসময়ই করো, গত মাসেও করেছ, তোমার আগের প্রেমিক/প্রেমিকার সাথে একই কাজ করেছ। এই ধরণের কথাবার্তা আপনার ভালোবাসার মানুষটির কাছে আপনাকে শুধুমাত্রই একজন বিরক্তিকর মানুষ হিসেবে উপস্থাপন করে। কথায় কথায় অতীত টেনে আনা সম্পর্ককে বিষাক্ত করে তুলে। এ ধরনের ব্যক্তিদের অতীতের ভুত সবসময় তাড়া করে বেড়ায়। যা আপনার সম্পর্ককে নষ্ট করে দিতে পারে।

আপনার সব মনোযোগ শুধু সঙ্গীকে ঘিরে: যদি দেখেন আপনার পার্টনার সবসময় চাচ্ছেন আপনার সব চিন্তা-ভাবনা, ধ্যান-জ্ঞান তাকে ঘিরেই থাকুক। আপনার পরিবার বা বন্ধুদের সময় দিতে পারছেন না আপনার সঙ্গীর কারণে তাহলে বুঝতে আপনি রেডজোনে পা রেখেছেন। যদি আপনার সঙ্গীকে ভালবাসতে গিয়ে আপনজন কারো সাথে যোগাযোগ রাখতে না পারেন তাহলে বুঝবেন আপনি একটি তিক্ত সম্পর্কেই আছেন। উদাহরণস্বরূপ, আপনার খুব কাছের বন্ধুকে তার জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে না পারা কিংবা কাছের কোনো আত্মীয়ের গুরুত্বপূর্ণ কোনো অনুষ্ঠানে থাকতে না পারা।

অতিরিক্ত নির্ভরশীলতা: সম্পর্কে কোনো একজন যদি তার সঙ্গীর ওপর অতিরিক্ত নির্ভরশীল হয়ে যায় তখনও সম্পর্ক চালিয়ে যাওয়া জটিল হতে পারে। দেখা যায়, এরকম সম্পর্কের ক্ষেত্রে সবসময় সঙ্গীর সহযোগিতা না পেলে নিজেকে অসহায় মনে হয়। এ ধরনের অতিরিক্ত নির্ভরশীলতা সম্পর্কের অবসান ঘটিয়ে দিতে পারে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

"রামগতি তোমায় ভালোবাসি"

‘রামগতি তোমায় ভালোবাসি’

সুলতান মাহমুদ আরিফ :: ভালোবাসা আর ভালোলাগার প্রিয় জায়গা রামগতির ভালোবাসাময় প্রিয় ...