সকলের জন্য পানি স্যানিটেশন নিশ্চিত করতে সচেতনতা বাড়াতে হবে

আ হ ম ফয়সল, ঢাকা

পানি, স্যানিটেশন ও হাইজিন বিষয়ক কার্যক্রমকে শতভাগ সফল ও সকলের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করতে বাংলাদেশ ওয়াশ এ্যালায়েন্স এর উদ্বোধনী কর্মশালা বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারী) রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

‘সকলের জন্য ওয়াস’ শ্লোগানকে সামনে রেখে আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবীর নানক এমপি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নেদারল্যান্ড দূতাবাসের উপরাষ্ট্রদূত ক্যারেল রিকটার, ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার তাকসিম এ. খাঁন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো: নুরুজ্জামান, স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্ম সচিব জুয়েনা আজিজ।

ওয়াটার এইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর ডা: খায়রুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ডরপ এর প্রতিষ্ঠাতা ও সেক্রেটারী জেনারেল এএইচএম নোমান, দুস্থ্য স্বাস্থ্য কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক দিবালক সাহা, বাসা’র শহীদুল হক, উপকূলীয় এলাকার পানি উন্নয়ন কমিটির সভাপতি অধ্যাপক সফিকুল ইসলাম, বাগেরহাট পৌরসভার প্যানেল মেয়র আবুল হাসেম, সাতক্ষীরা পৌরসভার প্যানেল মেয়র শেখ শফিকুদৌলা, প্রাকটিক্যাল বাংলাদেশ’র মিনা খালেক, জেজেএস’র জাকির হোসেন, বাংলাদেশ ওয়াস এ্যালায়েন্সের কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর অলক মজুমদার প্রমূখ।

কর্মশালায় বাংলাদেশ ওয়াশ এ্যালায়েন্সের সদস্য সংগঠনের প্রতিনিধি ছাড়াও জনপ্রতিনিধি, পানি ও সেনিটেশন বিশেষজ্ঞ, দাতা সংস্থার প্রতিনিধি ও এনজিও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবীর নানক বলেন, নিরাপদ পানি ও স্যানিটেশন অধিকার নিশ্চিও করতে সরকার অঙ্গিকারাবদ্ধ। দেশে স্যানিটেশন কার্যক্রমে অনেক সাফল্যজনক অগ্রগতী ও উন্নয়ন ঘটেছে। বর্তমান সরকারের আমলে গত বছরই ঢাকার পানি সংকট মোকাবেলায় সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হয়নি। দেশে পানি নিয়ে যুদ্ধ হতে পারে। এ অবস্থার উত্তরণে পানির অপব্যবহার বন্ধে সকলকে সচেতন হতে হবে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, দেশের দক্ষিনাঞ্চলের ৫০ লাখ মানুষের পানি সংকট মোকাবেলায় সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে। পাশাপাশি পানি সংকট মোকাবেলায় সকলের মধ্যে সচেতনতা তৈরী করতে হবে। বক্তারা গ্রামের পুকুরের সুপেয় পানি রক্ষায় প্রস্তাবিত পানি আইনে পুকুরকে আইন দ্বারা রক্ষার জন্য সরকারের কাছে দাবী জানান। বর্তমান সরকার পানি, স্যানিটেশন খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি করেছে। তবে বরাদ্দের অধিকাংশ অর্থই শহরকেন্দ্রিক। এ জন্য বক্তারা গ্রামের সমস্যা নিরসণে বাজেট বরাদ্দ বৃদ্ধি করার জন্য সরকারের কাছে দাবী জানান।

উল্লেখ্য, নয়টি এনজিও এ্যাওসেড, বাসা, ডরপ, হোপ ফর দ্য পুওরেস্ট, জেজেএস, প্রাকটিক্যাল এ্যাকশান, স্লোব, উত্তরণ, ওয়াটার এইড এর সমন্বয়ে ওয়াস এ্যালায়েন্স গঠন করা হয়েছে। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৮টি দেশে ওয়াস এ্যালায়েন্স কাজ করছে। বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলের ৬টি জেলার পানি সরবরাহ, স্যানিটেশন ও হাইজিন ব্যবস্থাপনার উন্নয়নে ওয়াস এ্যালায়েন্স কাজ করছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

গরম পানি পানে ১০ উপকার

নিউজ ডেস্ক :: পানি পানে অনেক উপকার তা আমরা সবাই জানি। তবে ...