সংখ্যালঘু পরিবারকে উচ্ছেদের জন্য ৩০লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী

চাঁদা দাবীরবীন্দ্র নাথ পাল, ময়মনসিংহ থেকে :: ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়ীয়া উপজেলার আছিম বাজার এলাকায় ৩০লক্ষ টাকা চাঁদার দাবীতে একদল চিহ্নিত সন্ত্রাসী একটি সংখ্যালঘু পরিবারকে উচ্ছেদের জন্য অনরবত হুমকী ধামকী ও বাড়ী ঘরে হামলা লুটপাট করছে। সংখ্যালঘু পরিবারকে উচ্ছেদের জন্য গতকাল (২০জানুয়ারী) সন্ত্রাসী মো: আজগর আলী তরফদারের নেতৃত্বে অমল চন্দ্র দে সরকারের বাড়ীতে ও দোকানে হামলা করে ২ লক্ষ টাকা লুটপাট করে নিয়ে গেছে।

সুত্র জানায় অমল চন্দ্র সরকারের পিতা কালীপদ দে সরকারকে তার সম্পত্তি থেকে ১৯৬৯ সনে উচ্ছেদ করে। ৭০ সনে তার বাড়ীঘরে আগুন লাগিয়ে দেয়। ৭১’সনে কালীপদ’র বাড়ী দখল করে নেয়। ১৯৮০ সনে

কালীপদকে সুপরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়। ৮৫ সনে কালীপদ এর জমি জাল দলিলের মাধ্যমে বিআরএস রেকর্ড করে নেয় সন্ত্রাসী চক্রটি।

এ ব্যাপরে মৃত কালীপদ’র ছেলে বিআর এস সংশোধণীর একটি মামলা

করে। যা এখনো বিচারাধীন। এদিকে সংখ্যালঘু কালীপদ’র ছেলে অমলের আছিম পাটুলী খতিয়ান ১০৮৮/১০৮৯/১০৬৯/১০৯০,দাগ নং ৩৩৬৮/৩৩৬৯/৩৩৭০ এর ৪৬ শতাংস দখলীকৃত জমি দখলের জন্য ৪ জানুয়ারী’১৬ইং ৩০ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। চাঁদা না দিলে বাড়ী ও জমি দখল করিয়া নিবে বলে হুমকী দেয়। এ ঘটনায় অমল চন্দ্র দে সরকার ফুলবাড়ীয়া থানায় গত ৬ই জানুয়ারী’১৬ইং মো: আজগর আলী তরফদার, মো: আরিফুল ইসলাম, মো:সারোয়ার হোসেন, মো:সাইফুল ইসলাম, মো: হারুন অর রশিদ, মো: বজলুর রশিদ, মো: মামুন অর রশিদ, মো: হারুন মাস্টার, মো: তাজুল ইসলাম, মো: আব্দুল আজিজ, মো:শফিকুর ইসলাম(সাফি) ,মো: রিয়াজ উদ্দিন সহ অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জন আসামী করে একটি মামলা (নং- ৬, তাং ৬/১/১৬ইং)দায়ের করে।

মামলা দায়েরের দেড় মাস পার হলেও পুলিশ কোন আসামী না ধরায় উল্লেখিত আসামী গতকাল(২০ জানুয়ারী) আছিমবাজারের বাড়ীও দোকানে হামলা চালিয়ে ঘরের টিন, দোকানের মালামাল ও নগদ ৪০ হাজার টাকা সহ ২লাখ টাকা লুটপাট করে নেয়। সংখ্যালঘু এ পরিবারের জমি ও দোকান দখলের জন্য উল্লেখিত আসামীরা অনবরত জীবন নাশের হুমকী দিয়ে আসছে।

এ ব্যাপারে অমল চন্দ্র দে সরকার ঘটনাটি সরজমিনে তদন- পুর্বক সুষ্ঠু বিচারের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশের আইজি, র‌্যাব, উপ পরিচালক ডিজিএফআই, এনএস আই, ডিসি , এসপি, মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ও ইউএনও বরাবরে আবেদন জানালেও আজ পর্যন্ত সংখ্যালঘু পরিবারটিকে রক্ষার জন্য কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। সংখ্যালঘু এ পরিবারটিকে রক্ষার জন্য প্রশাসনের আশু নজরদারী প্রয়োজন, অন্যথায় যে কোন সময় সন্ত্রাসী বাহিনী অমলকে

খুন করতে পারে বলে জানিয়েছেন চাঁদাবজী মামলার বাদী অমল চন্দ্র দে সরকার।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শিবগঞ্জের জঙ্গি আস্তানা

শিবগঞ্জের জঙ্গি আস্তানা থেকে চারজনের মরদেহ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার :: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবপুর উপজেলার শিবনগর গ্রামে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি ...