শ্রীলষ্কার বিপক্ষে পাকিস্তানের সহজ জয়

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে আট উইকেটের সহজ জয় পেয়েছে পাকিস্তান। শ্রীলঙ্কার দেয়া ১৩২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৬৯ বল হাতে রেখেই দুই উইকেট হারিয়ে ১৩২ রান করলে আট উইকেটের বড় ব্যবধানে শ্রীলঙ্কাকে পরাজিত করে মিসবাহ-উল-হকের পাকিস্তান। এ জয়ের ফলে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ১-০তে এগিয়ে গেলো পাকিস্তান। শুক্রবার দুবাইতে এ ওয়ান্ডে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

১১৫ রানে দ্বিতীয় উইকেট পতনের পর ইউনুস খান উইকেটকিপার সরফরাজ আহমেদকে সাথে নিয়ে দলকে জয়ের বন্দরে ভেড়ান। জয়সূচক রানটি আসে সরফরাজ আহমেদের ব্যাট থেকে। জয় থেকে তখন এক রান দূরে পাকিস্তান। দিলহারা ফার্নান্ডোর করা ষষ্ঠ ওভারের পঞ্চম বলটি ডিপ স্কোয়ার লেগ অঞ্চলে ঠেলে দিয়েই এক রান নিলে জয়ের বন্দরে পৌঁছে পাকিস্তান।এদিন ইউনুস খান তার ক্যারিয়ারের ২৬তম অর্ধশতকের দেখা পান। লাকমালের করা চতুর্থ ওভারের তৃতীয় বলটি মিড-অফ এবং এক্সট্রা কাভারের মাঝখান দিয়ে সীমানা ছাড়া করে অর্ধশতক পূর্ণ করেন ইউনুস খান। ইউনুস খান ৫৭ বলে সাতটি চারের সাহায্যে ৫৬ রানে অপরাজিত থাকেন। ৪ রান করা অপর অপরাজিত ব্যাটসম্যান সরফরাজ আহমেদ। ১৩২ রানের সাধারণ মানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে মাত্র ১২ রানে ওপেনার মোহাম্মদ হাফিজের উইকেটটি হারালেও দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ইমরান ফারহাত ও অভিজ্ঞ ইউনুস খান দেখেশুনে শ্রীলঙ্কার বোলারদের মোকাবেলা করে ১০৩ রানের পার্টনারশিপ গড়েন।

ইমরান ফারহাত কাটায় কাটায় ৫০ রান করে তার ক্যারিয়ারের নবম অর্ধশতক পূর্ণ করে সাজঘরে ফেরেন। ৬৫ বলে সাতটি দৃষ্টিনন্দন বাউন্ডারির সাহায্যে ওই রান করেন ইমরান ফারহাত। ইমরান ফারহাতের উইকেটটিও নেন লাকমাল। তাকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন লাকমাল। এর আগে  দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে শ্রীলঙ্কা পাকিস্তানের বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে ১৩১ রানেই গুটিয়ে যায়। ৪০.৩ ওভার মোকাবেলা করে লঙ্কানরা। অবসর ভেঙে পাকিস্তান ওয়ানডে দলে ফিরেই শহীদ আফ্রিদি তিন উইকেট নিজের ঝুলিতে নেন।দলীয় ১২ রানেই লঙ্কান অধিনায়ক তিলকরত্নে দিলশানকে সরাসরি বোল্ড করে দেন পাকিস্তানী পেসার আইজাজ চিমা। দিলশান মাত্র ৪ রান করেন। এরপর পাকিস্তানী অলরাউন্ডার আবদুল রাজ্জাক লঙ্কান অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান কুমার সাঙ্গাকারাকে উইকেটকিপার সরফরাজ আহমেদের ক্যাচে পরিণত করলে দ্বিতীয় উইকেট হারায় লঙ্কানরা। দলীয় রান তখন ৩৬। সাঙ্গাকারার সংগ্রহ ৫ রান।

৬৬ রানে ওপেনার উপল থারাঙ্গাকে ফিরিয়ে দেন মোহাম্মদ হাফিজ। হাফিজের বলে আইজাজ চিমার তালুবন্দী হওয়ার আগে ২৫ রান করেন উপল থারাঙ্গা। ৭৭ রানে দিনেশ চান্দিমালকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন শহীদ আফ্রিদি। দলে ফিরে এসে প্রথম ওভারের পঞ্চম বলেই উইকেট লাভ করলেন পাকিস্তানের নির্ভরযোগ্য অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি। চান্দিমাল ৩১ বলে একটি চার এবং দুটি ছক্কার সাহায্যে ২৮ রান করেন। ১০৪ রানে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ রান আউট হয়ে গেলে পঞ্চম উইকেটের পতন ঘটে লঙ্কানদের। ম্যাথুজের সংগ্রহ ১০ রান। ১০৭ রানে মোহাম্মদ হাফিজ কুলাসেকারাকে উমর গুলের ক্যাচে পরিণত করলে ষষ্ঠ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। কুলাসেকারা কোনো রান না করেই সাজঘরে ফেরেন।

১২০ রানে মাহেলা জয়াবর্ধনেকে আবদুল রাজ্জাকের ক্যাচে পরিণত করেন পাকিস্তানি স্পিনার সাঈদ আজমল। জয়াবর্ধনে আউট হওয়ার পর আর মাত্র ১১ রান যোগ করতেই গুটিয়ে যায় লঙ্কানদের ইনিংস। ১২২ রানে আবারো আঘাত হানেন আফ্রিদি। আফ্রিদির এবারের শিকার প্রসন্ন। প্রসন্নকে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিতে বাধ্য করেন আফ্রিদি। ১২৯ রানে লাকমালের উইকেটটি তুলে নেন স্পিনার সাঈদ আজমল। লাকমাল কোনো রান করতে পারেননি। শ্রীলঙ্কার ইনিংসে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন শহীদ আফ্রিদি। ১৩১ রানে শহীদ আফ্রিদি তার করা দশম ওভারের তৃতীয় বলের ঘূর্ণিতে লাসিথ মালিঙ্গাকে সরাসরি বোল্ড করে দিলে ৪০.৩ ওভারে ১৩১ রানেই গুটিয়ে যায় দিলশানের শ্রীলঙ্কা।

পাকিস্তানি বোলারদের মধ্যে শহীদ আফ্রিদি তিনটি, মোহাম্মদ হাফিজ এবং সাঈদ আজমল দুটি করে এবং আইজাজ চিমা ও আবদুল রাজ্জাক একটি করে উইকেট নেন লঙ্কানদের। ম্যাচসেরার পুরস্কার পান পাকিস্তানের হয়ে তিন উইকেট নেয়া অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি । পাকিস্তান আগামি ১৪ নভেম্বর একই মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে মুখোমুখি হবে। বাংলাদেশ সময় বিকেল পাঁচটায় শুরু হবে খেলাটি।

ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডট কম/স্পোর্টস নিউজ

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মুশফিকের সামনে শুধুই কোহলি

ষ্টাফ রিপোর্টার ::  এশিয়া কাপ ক্রিকেটের ১৪তম আসরের প্রথম ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে ...