শীতের কাপড়ের যত্ন

ডেস্ক নিউজ: প্রতিটি মার্কেট সেজে উঠছে শীতের নতুন পণ্যের সমাদরে। শীত পোশাকের পাশাপাশি শীত অনুষঙ্গেও ভরে উঠেছে মার্কেটের প্রতিটি দোকান। তবে প্রতিবছরই যে নতুন শীত পোশাক বা নতুন শীত অনুষঙ্গ লেপ, কম্বল, চাদর ইত্যাদি কিনতে হবে- এমনটিও নয়! তাই কয়েকবছর ধরে ব্যবহার করা লিনেন বা উলের প্রিয় সোয়েটার, চামড়ার জ্যাকেট, মাফলার, কানটুপি, লেপ, কম্বল বা চাদর- এবারের শীতেও হতে পারে আপনার শীত নিবারণের সঙ্গী।

তাই ঘরের তুলে রাখা শীত কাপড় আর অনুষঙ্গগুলোর যত্ন এখনই শুরু করে দিন। কাপড় ভেদে শীত পোশাকাদির সঙ্গে সঙ্গে শীত নিবারণের অনুষঙ্গগুলোকেও ধুয়ে-মুছে পরিস্কার করুন।

পশমী কাপড়ের যত্ন
পশমি কাপড়ে রং ওঠার সম্ভাবনা থাকলে তা রিঠার পানিতে ধুঁয়ে নিন। ধোয়ার সময় পানিতে সাদা কাপড়ের বেলায় লেবুর রস এবং রঙিন কাপড়ের বেলায় ভিনেগার মিশিয়ে নিন। এতে কাপড়ের ঔজ্জ্বল্য ঠিক থাকবে। উলের কাপড় ধোয়ার সময় কখনোই কাপড় ব্রাশ দিয়ে ঘষবেন না। ডিটারজেন্ট পানিতে কাপড় ভিজিয়ে কিছুক্ষণ পর দুই হাত দিয়ে কাপড় কেচে নিন। এতে কাপড়ের ভেতর জমে থাকা ময়লা দূর হয়ে যাবে। উলের কাপড় ধুঁয়ে পানি নিংড়ানোর জন্য বড় আকৃতির তোয়ালের মধ্যে কাপড়টি জড়িয়ে দুই হাত দিয়ে চেপে পানি নিংড়িয়ে নিন। উল বা পশমি কাপড় এক ঘণ্টার বেশি সময় পানিতে ভিজিয়ে না রাখাই ভালো। উল বা পশমি কাপড় কখনোই কড়া রোদে শুকাতে দেবেন না। হাতমোজা ও মাফলার ধোয়ার সময়ও একই পদ্ধতি অনুসরন করুন।

লেদার  কাপড়ের যত্ন
লেদারের কাপড় বাড়িতে পরিস্কার না করে উপযুক্ত লন্ড্রিতে দিয়ে পরিস্কার করিয়ে নিন। কয়েক বছর পরপর লেদার জামাকাপড়ের ভিতরের লাইনিং বদলানো খুবই জরুরি হয়ে যায়। লেদার যদি খুব পাতলা হয় তা হলে হোয়াইট টিস্যুর প্যাডিং দিয়ে নিন। ব্লেজার বেশি রোদে দেয়া থেকে বিরত থাকুন।

উল কাপড়ের যত্নে
উলের কাপড় ধোয়ার জন্য কম ক্ষারযুক্ত সাবান, ডিটারজেন্ট পাউডার ও শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। উলের জামাকাপড় ওয়াশিং মেশিনে না ধুয়ে ঠাণ্ডা পানিতে অল্প ডিটারজেন্ট দিয়ে ধুয়ে পরিস্কার করুন। উলের কাপড় ধোয়ার সময় কখনই কাপড় ব্রাশ দিয়ে ঘষবেন না। এতে কাপড় নষ্ট হবার সম্ভাবনা থাকে। কাপড়ে ব্লিচ যত কম ব্যবহার করা যায় তত ভালো। শুধু সাদা কাপড় উজ্জ্বল করার জন্য আর দাগ তুলতে ব্লিচ ব্যবহার করুন। উলের জামা ধুয়ে ভাঁজ না করে ঝুলিয়ে রাখুন। উলের জামাকাপড় বেশি ড্রাই ক্লিনিং না করাই ভালো। এতে উল নষ্ট হয়ে যেতে পারে। ইস্ত্রি করার সময় সোয়েটার বা শাল উলটে নিন। স্টিম দিয়ে ইস্ত্রি করার চেষ্টা করুন, গরম ইস্ত্রি সরাসরি যেন উল স্পর্শ না করে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। তাছাড়া পশমি বা উলের কাপড় ইস্ত্রি করার সময় এর ওপর সুতির কাপড় বিছিয়ে নিলে কাপড় ইস্ত্রী অনেক সহজ হয়। উলের কাপড় পরার আগে প্রথমেই ব্রাশ দিয়ে ঝেড়ে পরিস্কার করে নিন।

লিনেন কাপড়ের যত্ন
সাদা লিনেন গরম পানিতে আর রঙিন লিনেন অল্প গরম পানিতে দিয়ে ধুয়ে পরিস্তার করুন। লিনেন কাপড় ওয়াশিং মেশিনে না শুকানোই ভালো। ধোয়া কাপড় একটু ভিজে ভিজে অবস্থায় ইস্ত্রি করে নিতে হয়।

আরো কিছু অনুষঙ্গের যত্ন
কম্বলের রং অনেক সময় জ্বলে যায়, তাই লন্ড্রি থেকেই রং করিয়ে নিতে পারেন। কম্বল ঝাড়ার সময় লোমগুলো যেন উঠে না আসে সে জন্য নরম ব্রাশ ব্যবহার করা করুন। শীতে লোশন, তেলজাতীয় জিনিসের ব্যবহার বেশি হয়। ফলে কাপড়ে এসবের দাগ বসে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই মাঝেমধ্যে কাপড় ড্রাইওয়াশ করুন। ব্যবহৃত শালগুলোও ড্রাইওয়াশ করে ব্যবহার করুন। ব্যবহার শেষে শাল ভাজ করে আলমারিতে তুলে রাখুন।

শীতের অন্য অনুষঙ্গের মধ্যে লেপের গুরুত্বটাই বেশি। তাইতো ঘরে তুলে রাখা লেপের কাভার খুলে, ডিটারজেন্টে ভিজিয়ে এবং সাবান দিয়ে পরিস্কার করে ব্যবহার উপযোগী করে তুলুন। আর ভারী কাঁথা ব্যবহারের আগে তা অবশ্যই ধুয়ে কড়া রোদে শুকিয়ে নিন।

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

এ সপ্তাহের ভাগ্য পূর্ভাবাস

সপ্তাহের রাশিফল করিগো বর্ণন। মনোযোগ সহকারে করহে শ্রবণ। মা-বাবা ,ভাই-বোন, আত্মীয় স্বজন, ...