ব্রেকিং নিউজ

শরীয়তপুর পৌর মেয়র আবদুর রব মুন্সী বরখাস্ত

Shariatpur Pic-1সৈকত দত্ত, শরীয়তপুর : শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র আবদুর রব মুন্সীকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। রবিবার রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে উপ-সচিব মোঃ খলিলুর রহমান এর স্বাক্ষরিত বরখাস্তদেশে মেয়রকে সাময়িকভাবে বরখাস্তসহ ও ১নং প্যানেল মেয়রকে অনতিবিলম্বে শরীয়তপুর পৌরসভার দায়িত্বভার গ্রহন করার জন্য বলা হয়। যাহা স্থানীয় সরকার বিভাগের কম্পিউটার প্রোগ্রামের মাধ্যমে ওয়েবসাইটে প্রকাশ সহ শরীয়তপুর পৌরসভার সচিবকেও অনুলিপি প্রেরন করা হয়েছে।

শরীয়তপুর পৌর মেয়র আবদুর রব মুন্সীকে সাময়িক বরখাসত্মাদেশ পাওয়ার ৩ দিনের মধ্যে স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন ২০০৯ এর ৩১(২) উপ-ধারা অনুযায়ী ১নং প্যানেল মেয়র এর নিকট শরীয়তপুর পৌরসভার দায়িত্ব ভার হস্তান্তর করার অনুরোধ করা হয়েছে। দায়িত্ব প্রাপ্ত প্যানেল মেয়র স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ ও প্রচলিত আর্থিক বিধি-বিধান অনুসরণপূর্বক পৌরসভার দৈনন্দিন কার্যক্রমসহ আর্থিক দায়িত্ব পালন করার জন্য এ আদেশে বলা হয়েছে।

শরীয়তপুর পৌর মেয়র আবদুর রব মুন্সীকে সাময়িক ভাবে বরখাসত্ম করা হয়েছে। স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন ২০০৯ এর ৩১(১) ধারার বিধান অনুযায়ী এ সিন্ধানত্ম গৃহীত হয়েছে। শরীয়তপুর পৌর মেয়র আবদুর রব মুন্সির বিরুদ্ধে পালং মডেল থানায় ৬আগস্ট’১৪ তারিখে একটি জিআর মামলা হয়। যাহা পালং মডেল থানা মামলা নং-০৮, জিআর ২০৬/১৪, ধারা-৪২০/৪৬৭/৪৬৮/১০৯ পেনাল কোর্ট।

উল্লেখিত মামলার অভিযোগ পত্র আদালত কর্তৃক গৃহীত হওয়ার পরেও মেয়র আবদুর রব মুন্সী শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র এর ক্ষমতা প্রয়োগ করার তথ্য জনস্বার্থে পরিপন্থি এবং প্রশাসনিক দৃষ্টি কোন থেকে সমীচীন নয় মর্মে যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট প্রমাণিত হওয়ায় সরকার তাকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করে।

অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক, পরবর্তী গেজেট প্রকাশের জন্য ঢাকাস্থ তেজগাঁও সরকারী মন্ত্রণালয় এর পরিচালক, শরীয়তপুরের স্থানীয় সরকার উপ-পরিচালক, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মহোদয়ের একান্ত সচিব, শরীয়তপুরের পৌর মেয়র আবদুর রব মুন্সী, পৌরসভার ১নং প্যানেল মেয়র, স্থানীয় সরকার বিভাগের ওয়েবসাইট কম্পিউটার প্রোগ্রামার সহ শরীয়তপুর পৌরসভার সচিবকে রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে উপ-সচিব মোঃ খলিলুর রহমান স্বাক্ষরিত অনুলিপি প্রেরণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, শরীয়তপুর সদরের আংগারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের তিন দশমিক ৭১ শতাংশ জমি, যার বাজার দর ৪ কোটি ৫৭ লাখ ৪২ হাজার ৪৪৫ টাকা, বিক্রির জন্য ২০১২ সালের ২২ ও ২৩ সেপ্টেম্বর পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে দরপত্র আহ্বান করেন প্রধান শিক্ষক আনোয়ার কামাল। তিনটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নামমাত্র মূল্য দেখিয়ে দরপত্র দাখিল করে।

তাদের মধ্যে জে সরদার কর্পোরেশন নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগসাজস করে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটি মাত্র এক কোটি ৫০ লাখ টাকায় জমি বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়। সে মোতাবেক একই বছরের ৩০ ডিসেম্বর প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন কামাল দাতা হিসেবে জে সরদার কর্পোরেশনের মালিক জাহাঙ্গীর আলম ও তার ভাই আব্দুস সালামের নামে জমি রেজিস্ট্রি করে দেন।

কিন্তু জমি বিক্রির টাকা বিদ্যালয়ের তহবিলে জমা দেওয়া হয়নি। জমি বিক্রির দলিল রেজিস্ট্রি হওয়ার ২ মাস ১৮ দিন পর গ্রহীতারা ৭০ লাখ টাকা ও ৮০ লাখ টাকার দুটি চেক দেন। কিন্তু চেকে দেওয়া স্বাক্ষরের সঙ্গে ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট মালিকের স্বাক্ষর না মেলায় এবং জমি গ্রহীতার ব্যাংক হিসাব নম্বরে পর্যাপ্ত টাকা না থাকায় চেক দুটি প্রত্যাখ্যাত হয়।

পরবর্তীতে বিষয়টি জানতে পেরে দুর্নীতি দমন কমিশন ফরিদপুর তদন্তকরে এবং ২০১৪ সালের ৬ অগাস্ট দুদকের উপ-পরিচালক মলয় কুমার সাহা বাদী হয়ে পালং মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তদন্তের পর গত ২৮ মে ১২ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় দুদক।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শিবগঞ্জের জঙ্গি আস্তানা

শিবগঞ্জের জঙ্গি আস্তানা থেকে চারজনের মরদেহ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার :: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবপুর উপজেলার শিবনগর গ্রামে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি ...