শরীয়তপুরে ৫টি পৌরসভা: নির্বাচনী মাঠে নেই কেউ!

পৌরসভা নির্বাচনী সৈকত দত্ত, শরীয়তপুর প্রতিনিধি :: নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সারা দেশের ন্যায় শরীয়তপুরেও ৩০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। প্রত্যেক দলের একজনই দলীয় মনোনয়ন পাবে তাই দলীয় মনোনয়ন পেতে দলের নেতাদের কাছে ধরনা দিচ্ছে প্রার্থীরা। আগামী ৩ ডিসেম্বর বিকাল ৫টার পরে কেউ মনোনয়ন পত্র নিতে পারবে না। তাই দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের কাছে প্রার্থীদের দৌর-ঝাপ দেখা যায়।

অপর দিকে ভোটারের ক্ষোভ বর্হিপ্রকাশ হতে দেখা যাচ্ছে। মেয়র প্রার্থীরা দলের জ্যেষ্ঠ নেতা কাছে মনোনয়ন চায় কিন্তু নেতারা কয়টা ভোট দিবে? দলীয় মনোনয়ন ছাড়া জনগনের কাতারে আশার জন্য আহবান জানাচ্ছে সাধারণ ভোটারগণ।

শরীয়তপুর পৌরসভা সহ জেলার ৫টি পৌরসভায় ৩০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। তাই ৩ ডিসেম্বরের মধ্যে মনোনয়ন পত্র গ্রহন করতে হবে। কোঁথা থেকে দলীয় মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করতে হবে তা নিয়েও মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মাঝে হতাশা দেখা গেছে।

জেলার ৫ পৌরসভার প্রায় অর্ধশতাধিক মেয়র প্রার্থীরা ঢাকায় নিজ দলীয় নেতাদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলছে। অনেকের মতে দলীয় সমর্থন পেলে পৌর পিতা হতে খুব বেশী কষ্ট করতে হবে না। আর এ কারণে অনেকে সাধারণ ভোটারদের থেকে দূরে সরে ঢাকায় দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের পাশে সময় দিচ্ছে।

দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থীত প্রার্থীর সংখ্যাই বেশী। অন্য দিকে বিএনপি ও স্বতন্ত্রপ্রার্থীর সংখ্যা একক।

জেলা পৌর নির্বাচনী এলাকা ঘুরে ও জনগণের সাথে আলাপ করে জানাযায়, তারা এলাকাল উন্নয়ন চায়। এ জন্য একজন সৎ, নির্ভিক ও সাহসী প্রার্থী প্রয়োজন। প্রার্থীদের মধ্যে যাকে যোগ্য মনে হবে তাকেই ভোট দিবে বলে জানায় পৌর এলাকাবাসী। বিগত দিনে অনেক প্রার্থীকে দেখেছি নির্বাচন এলে মিথ্যা অঙ্গীকার দিয়ে জনগণের মূল্যবান ভোট হাতিয়ে নেয়।

ভোটে জয়যুক্ত হলে আর তাদের তুলা রাশি লোকের মাধ্যমে বাটি চালান দিয়েও খুঁজে পাওয়া যায় না। উন্নয়ন তো দূরে থাক। তারা বলেন এবার প্রার্থীর যোগ্যতাকে প্রাধান্য দেয়া হবে কোন প্রত্যারনাকে না।

সুশীল সমাজের মতে, দল তার যেকোন প্রার্থীকে মনোনয়ন দিতে পারে। এই জন্য ভাবার অবকাশ নাই যে সেই মেয়র প্রার্থী নির্বাচনে জয় লাভ করবে। প্রার্থীদের সবাইকে মনে রাখতে হবে নির্বাচনী মাঠে জয় পরাজয়ের হিসাব ভোটারদের হাতে, নিজ দলীয় জ্যেষ্ঠ নেতাদের হাতে না।

যেই প্রার্থীই ভোটারদের মন জয় করতে পারবে সেই নির্বাচনী মাঠে জয় লাভ করবে।

কাউন্সিলর প্রার্থীদের বেশীর ভাগ প্রার্থীরাই ঢাকায় নেতাদের কাছে ধরনা দিচ্ছে। দলীয় মনোনয়ন না পেলেও যারা জনগণের সাথে রয়েছে এমন কয়েক জনের সাথে আলাপ করে জানা যায়, দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবার পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

আর প্রতি দলের একজন মেয়র প্রার্থী পাবে দলীয় প্রতিক। তাই দলীয় সিদ্ধান্ত ও প্রতিকের অপেৰায় না থেকে জনগণের সাথে থেকেই নির্বাচন করবো।

শরীয়তপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সেক মেহাম্মদ জালাল উদ্দিন বলেন, নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ৩০ ডিসেম্বর শরীয়তপুর পৌর নির্বাচনের ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। ৩ ডিসেম্বর মনোনয়ন গ্রহনের শেষ দিন। দলীয় মেয়র প্রার্থীরা দলীয় প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবে। আর অন্য প্রার্থীরা বরাদ্দকৃত প্রতিকের মাধ্যমে নির্বাচনে অংশগ্রহন করবে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আইনি পথে খালেদা জিয়ার মুক্তি ভুলে যান: মওদুদ

ষ্টাফ রিপোর্টার :: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ দলের নেতা-কর্মীদের ...