Home / আইন-আদালত / লক্ষ্মীপুরের এডিসি ও সাবেক সিভিল সার্জনের সমঝোতা

লক্ষ্মীপুরের এডিসি ও সাবেক সিভিল সার্জনের সমঝোতা

লক্ষ্মীপুরের এডিসি ও সাবেক সিভিল সার্জনের সমঝোতাজহিরুল ইসলমা শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:: লক্ষ্মীপুরে এডিসি ও সাবেক সিভিল সার্জনের মধ্যে ঘটে যাওয়া অনাকাঙ্খিত ঘটনার সমাধানের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন ও ডাক্তারদের সংগঠন বিএমএ এর সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে লক্ষ্মীপুর সার্কিট হাউজের হল রুমে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠক শেষে এডিসি শেখ মুর্শিদুল ইসলাম ও সাবেক সিভিল সার্জন ডা. মো. সালাহ উদ্দিন শরীফ সংবাদকর্মীদের বলেন, গত সোমবার সকালে কাকলি শিশু অঙ্গন স্কুলে ছাত্র-ছাত্রীদের আগে-পরে যাওয়া নিয়েকে যে অনাকাংক্ষিত ঘটনা ঘটেছে তা কারই কাম্য নয়। আমরা একে অপরকে চিনতে না পারায় উক্ত ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি সুষ্ঠ ও সুন্দর সমাধানের লক্ষ্যে সকলের সম্মানের দিকে তাকিয়ে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, ডাক্তারদের সংগঠন ও জেলার সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে আজকের এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলার সার্বিক দিক বিবেচনা করে কেউ যেন এ বিষয় নিয়ে প্রশাসনের সর্বস্তরের সুনাম ক্ষুন্ন করতে না পারে, এ কারনে আমরা ঐক্যমতে পৌঁছেছি। আগামী দিনে এ ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনা যেন না ঘটে এটাই আমাদের কাম্য।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক হোমায়রা বেগম, পুলিশ সুপার আ স ম মাহাতাব উদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মীর শওকত হোসেন, সিভিল সার্জন ডা. মো. মোস্তফা খালেদ আহমদ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামান, এনএসআইর উপ-পরিচালক মাজহারুল ইসলাম, আইনজীবি সমিতির সাধারন সম্পাদক এডভোকেট নুরুল হুদা, বিএমএর সভাপতি ডা. আশফাকুর রহমান মামুন, স্বাচিব এর সভাপতি ডা. জাকির হোসেন প্রমূখ।

প্রসঙ্গত, সোমবার জেলা প্রশাসন কর্তৃক পরিচালিত শহরের কাকলি স্কুলের প্রবেশ পথে আগে পরে যাওয়াকে কেন্দ্র করে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শেখ মুর্শিদুল ইসলাম ও সাবেক সিভিল সার্জন ডা. মো. সালাহ উদ্দিন শরীফের হাতাহাতির ঘটনায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে সালাহ উদ্দিনকে ৩ মাসের কারাদন্ড দেয়া হয়।

পরে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় অর্থাৎ ২৪ ঘন্টার মধ্যে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আপিলের পর বিচারক মীর শওকত হোসেন ৫ হাজার টাকা মুচলেকায় ওই চিকিৎসকের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। এদিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজার বিষয় নিয়ে একটি রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে এডিসি শেখ মুর্শিদুল ইসলাম ও ভ্রাম্যামাণ আদালত পরিচালনাকারী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরজ্জামানকে তলব করে হাইকোর্ট।

পরে মঙ্গলবার এডিসি শেখ মুর্শিদুল ইসলামকে ওএসডি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রাণালয়ের সিনিয়র সহকারি সচিব (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) হিসেবে পদায়ন করা হয়। এছাড়া বুধবার আপিলে খালাস পান সাবেক সিভিল সার্জন ডা. মো. সালাহ উদ্দিন শরীফ।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে আপিলের পর বিচারক ইকবাল হোসেন তা মঞ্জুর করে সালাহ উদ্দিনকে খালাসের রায় দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

জরুরি সেব‘৯৯৯’র উদ্বোধন করলেন জয়

জরুরি সেবা ‘৯৯৯’র উদ্বোধন করলেন জয়

স্টাফ রিপোর্টার :: প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ...