রোমেলা জবানবন্দী দিলেন ম্যাজিষ্ট্রেটের কাছে

পুলিশ দম্পতির নির্মম নির্যাতনের শিকার গৃহকর্মী শিশু রোমেলা (৮) মঙ্গলবার পাবনা চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের কাছে জবানবন্দী নিয়েছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মামলার তদনত্মকারী কর্মকর্তা চট্রগ্রাম জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পুলিশ পরির্দশক (এস আই) বিজন বড়ুয়া।

পুলিশ জানায়, গৃহকর্মী শিশু রোমেলার ওপর পুলিশ দম্পতির নির্মম নির্যাতনের অভিযোগে তার বাবা ইয়াজ উদ্দিন বাদী হয়ে সীতাকুন্ড থানার উপ-পুলিশ পরির্দশক (এস আই) শাহেদ আলী এবং তার স্ত্রীকে আসামী করে গত ১২ নভেম্বর সীতাকুন্ড থানায় মামলা দায়ের করেন। সীতাকুন্ড থানা মামলাটি গ্রহণ করে তদনেত্মর জন্য চট্টগ্রাম জেলা গোয়েন্দা(ডিবি) পুলিশের উপর দায়িত্ব দেন।

মঙ্গলবার  সকাল ১০ টার দিকে মামলার তদনত্মকারী কর্মকর্তা চ্‌ট্টগ্রাম ডিবি পুলিশের উপ-পুলিশ পরির্দশক (এস আই) বিজন বড়ুয়া পাবনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক’র অনুমতি নিয়ে রোমেলাকে পাবনার চীফ জুডিশিয়াল আদালতে নিয়ে যান।) সেখানে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট সৈয়দ জাহেদ মুনসুর ২২ ধারায় শিশু রোমেলার জবানবন্দী গ্রহন করেন। জবানবন্দী শেষে বিকেল ৪ টার দিকে রোমেলাকে পূর্নরায় পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেখে আসা হয়।

মামলার তদনত্মকারী কর্মকর্তা বিজন বড়ুয়া জানান, রোমেলা তার জবানবন্দিতে সীতাকুন্ড থানার উপ-পুলিশ পরির্দশক (এস আই) শাহেদ আলীর স্ত্রী সুইটি’র চালানো নির্মম নির্যাতনের কথা চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট’র কাছে বর্ণনা করেছেন।

এর আগে গত ১৪ নভেম্বর সোমবার মামলার তদনত্মকারী কর্মকর্তা চ্‌ট্টগ্রাম ডিবি পুলিশের উপ-পুলিশ পরির্দশক (এস আই) বিজন বড়ুয়া পাবনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশু রোমেলার ১৬১ ধারায় জবানবন্দী গ্রহন করেন।

চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট’র কাছে শিশু রোমেলার দেওয়া জবানবন্দীর বিষয়ে জানতে চাইলে এস আই বিজন বড়ুয়া বলেন, শিশু রোমেলা তার ওপর পুলিশ দম্পতির নির্মম নির্যাতনের কাহিনী বর্ণানা করেছেন। তবে মামলা তদনেত্মর স্বার্থে বিসত্মারিত বলতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন। এসআই বিজন বড়ুয়া আরো বলেন, পুলিশ দম্পতি কে গ্রেফতারের জোর চেষ্ঠা চালানো হচ্ছে। অচিরেই আসামীদের গ্রেফতার করা যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

উলেস্নখ্য, পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার কাশিনাথপুর ইউনিয়নের গোটেংরা গ্রামের রিয়াজ উদ্দিন ও সালেহা খাতুনের মেয়ে রোমেলা। চট্রগ্রামের সীতাকুন্ড থানার এসআই শাহেদ আলী ৯ মাস আগে শিশু রোমেলাকে গৃহকর্মী হিসেবে সীতাকুন্ডুর বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তার স্ত্রী সুইটির নির্মম নির্যাতনে সে গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে পরে। পরে তাকে উদ্ধার করে ১০ নভেম্বর পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে রোমেলা মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডট কম/কলিট তালুকদার /পাবনা

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ডে-কেয়ার আইন চূড়ান্ত পর্যায়ে: চুমকি

ডে-কেয়ার আইন চূড়ান্ত পর্যায়ে: চুমকি

স্টাফ রিপোর্টার :: মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি ...