রুম নেই, তাই গাছতলায় পাঠদান

শিক্ষার মান উন্নয়নে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর অবকাঠামোগত অনেক উন্নয়ন হলেও এর বিন্দুমাত্র ছোঁয়া লাগেনি ঠাকুরগাঁওয়ের জামুরিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

তার ফল হিসেবে ক্লাসরুম ও বেঞ্চ না থাকায় রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে গাছতলা আর স্কুলের বারান্দার মাটিতে বসেই ক্লাস করছে স্কুলটির কোমলমতি শিক্ষার্থীরা।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জামুরিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৭৩ সালে স্থাপিত হয়। ৩ কক্ষবিশিষ্ট টিনসেড ঘরেই শুরু থেকেই চলছে শিক্ষা কার্যক্রম। এখন পর্যন্ত কোন নতুন ভবন নির্মাণ হয়নি স্কুলটির জন্য। এ ছাড়া অনেক দিনেও সংস্কার না হওয়ায় ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে টিনসেডের ৩টি রুমও। তারপরও এর ২টি কক্ষে জরাজীর্ণ আর গাদাগাদি করেই চলছে পাঠদান। এই অবস্থায় বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে ২শ’ ৭৮ শিক্ষার্থী পড়ালেখা করছে।

এসব শিক্ষার্থীর জন্য  কমপক্ষে ৭৫ জোড়া বেঞ্চের দরকার হলেও রয়েছে মাত্র ১২ জোড়া। শিক্ষার্থীদের বিপরীতে নেই প্রয়োজনীয় শিক্ষক। মাত্র ৪ শিক্ষক দিয়ে চলছে স্কুলটির শিক্ষা কার্যক্রম। ক্লাসরুম ও বেঞ্চের অভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুল মাঠে, গাছতলায় আর বারান্দার মেঝেতে বসে অবর্ণনীয় দুর্ভোগের মধ্যে ক্লাস করতে হচ্ছে।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাথী আক্তার, আঞ্জুয়ারা খাতুন, মনির হোসেন, হোসনে আরা, সুমাইয়া খাতুন, শুভ রায় জানায়, ক্লাসরুম না থাকায় বর্ষায় ভিজতে হয়েছে। এখন আবার রোদে পুড়তে হচ্ছে।

অভিভাবকরা এখন এই ভঙ্‌গুর অবস্থায় তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে নারাজ। কিন্তু আশপাশে আর কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না থাকায় বাধ্য হয়েই ছেলে-মেয়েদের স্কুলে পাঠাচ্ছেন তারা।

জামুরিপাড়ার বাসিন্দা দিদারুল ইসলাম জানান, ‘অনেকদিন ধরে বিদ্যালয়ের এই বেহাল অবস্থা থাকলেও কেউ কখনো খোঁজ নেয়নি। আমাদের সন্তানদের কষ্ট করে মাটিতে বসে, মাঠে বসে, গাছতলায় বসে ক্লাস করতে হচ্ছে।’

স্কুলের নানা সমস্যার কথা নির্দ্বিধায় স্বীকার করলেন এর প্রধান শিক্ষক রওশন আরা পারভীন।

তিনি জানান, ‘নেই প্রয়োজনীয় শ্রেণীকক্ষ, নেই বসার বেঞ্চ। তাই গাছতলায় ক্লাস নিতে হচ্ছে। বিদ্যালয়ের এসব সমস্যা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। আর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এসএম তৌফিকুজ্জামান ওই বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ারও আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু কবে নাগাদ তা বাস্তবায়িত হবে, তা জানি না।’

শুধু প্রকল্প প্রস্তাব বা আশ্বাস নয়, উচ্চশিক্ষার ভিত্তি প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে সরকার দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা নেবে এ দাবি এখন এলাকাবাসীর।

ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডট কম/তানিয়া সরকার/ঠাকুরগাঁও

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

১০ ডিসেম্বরের মধ্যে সব পরীক্ষা শেষ করতে ইসির নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার :: আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে সব পরীক্ষা শেষ করতে শিক্ষা ...