যারা দুর্নীতিতে অভ্যস্ত, তারা দেশের উন্নতি করতে পারে না: প্রধানমন্ত্রী

ষ্টাফ রিপোর্টার :: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যারা হত্যা, সন্ত্রাস ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত, তারা কখনোই দেশের উন্নতি করতে পারে না।
অনেক বাধা অতিক্রম করে দেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেয়েছে। এই সম্মান ও অগ্রযাত্রা যেন বজায় থাকে, সেদিকে লক্ষ্য রেখে সবাইকে কাজ করতে হবে। সমাজ বিনির্মাণে ও মানুষের জীবনমান উন্নয়নে সরকারকে সহযোগিতা করতে সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
শনিবার সন্ধ্যায় গণভবনে লায়ন্স ক্লাবস্ ইন্টারন্যাশনাল এর লায়ন লিও মহাসমাবেশে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, মানুষের সেবা করাটাই হচ্ছে সবচেয়ে বড় কথা।
মানুষের জন্য সেবা করা, মানুষের পাশে দাঁড়ানো এর চেয়ে বড় কাজ আর কি হতে পারে। আমি আমার জীবনটাকে উত্সর্গ করেছি বাংলার জনগণের জন্য। এখানে আমার নিজের চাওয়া-পাওয়ার কোনো কিছু নেই। আর বাবা-মা, ভাই সবই হারিয়েছি, হারাবারও কিছু নেই।
লায়ন্স ক্লাবস ইন্টারন্যাশনালের নবনির্বাচিত ‘আন্তর্জাতিক পরিচালক’ লায়ন কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদের সংবর্ধনা উপলক্ষে লায়ন ও লিওদের এই মহাসমাবেশের আয়োজন করা হয়।
প্রথমেই সরকার প্রধান শেখ হাসিনাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান লায়নরা। মানবতার সেবায় বিশ্বে প্রশংসিত হওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, শুধু একটা জিনিসই চাই, যে দেশকে আমার বাবা স্বাধীন করে দিয়ে গেছেন, যে স্বপ্নটা তার ছিল- যে বাংলাদেশ হবে ক্ষুধা মুক্ত দারিদ্র মুক্ত উন্নত বাংলাদেশ। এই বাংলাদেশকে সেভাবে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে আমরা গড়ে তুলতে চাই। আর সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা কাজ করছি।
সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়তে সকলের সহযোগিতা কামনা করে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা চাই সকলে এক সঙ্গে কাজ করে এই বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে তুলবো।
বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। বাংলাদেশ বিশ্বে সম্মান পাচ্ছে, স্বীকৃতি পাচ্ছে।
আগে আমরা বাঙালিরা বিদেশে গেলে সবাই বলতো ও বাংলাদেশ ঘূর্ণিঝড়, দুর্ভিক্ষ, ইত্যাদি ইত্যাদি। এখন আর সে কথা কেউ বলে না। বিদেশে গেলে নিশ্চয়ই উপলব্ধি করতে পারেন।
এখন বলে বাংলাদেশ তো উন্নয়নের রোল মডেল। এই সম্মানটা আমরা অর্জন করতে পেরেছি। আশা করি এই সম্মানটা আমরা যেন ধরে রাখতে পারি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাজেট সাতগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই বাজেট আগে করতে গেলে বিদেশিদের কাছে হাত পাততে হতো। আল্লাহর রহমতে এখন আর হাত পাততে হয় না।
বাজেটের ৯০ ভাগ নিজস্ব অর্থায়নে আমরা করে থাকি। আগে আমাদের উন্নয়ন বাজেট যা হয়তো ২৫-৩০ হাজার কোটি টাকা ছিল। এখন ১ লক্ষ ৭০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেট আমরা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি।
আমরা স্বল্পন্নোত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছি এটাকে আমাদের ধরে রাখতে হবে। দেশের অগ্রযাত্রা, এই উন্নয়নের ধারাটা অব্যহত রাখতে হবে।
তিনি বলেন, উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যেকোন প্রতিযোগিতায় জয়ী হবার সক্ষমতা হয়েছে বাংলাদেশের। এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে সবাইকে সক্রিয় হতে হবে।
শেখ হাসিনা বলেন, অবৈধ পথে ক্ষমতা দখলের জন্য বিদেশের কাছে ন্যায্য দাবি আদায়ে ব্যর্থ হয়েছিল ৭৫ পরবর্তী শাসকরা। দুর্নীতির কারণে সে সময়ে উন্নয়ন থমকে গিয়ে দেশ পিছিয়ে গিয়েছিল।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই, আমাদের সকলে একসঙ্গে কাজ করে এই বাংলাদেশকে আমরা উন্নত সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে তুলব। ২০২০ সালে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী এবং ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত দেশ হিসেবেই পালন করার প্রত্যয় করার পাশাপাশি ২০৪১ সালে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশ হবে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ এই আশাবাদ করেন তিনি।
অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কাউন্সিল চেয়ারপারসন লায়ন মো. আমিনুল ইসলাম লিটন এমজেএফ। এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন সাবেক আন্তর্জাতিক পরিচালক শেখ কবীর হোসেন।
গত ৩ জুলাই আমেরিকার লাস ভেগাসে বিশ্বের সর্ববৃহত্ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন লায়ন্স ক্লাবস ইন্টারন্যাশনাল’র ১০১তম আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে ২১০টি দেশের ডেলিগেটদের ভোটে লায়ন কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ (পিএমজেএফ) আন্তর্জাতিক পরিচালক নির্বাচিত হন।
Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বাসে তল্লাশির সময় পুলিশকে গুলি

স্টাফ রিপোর্টার :: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে সোহেল রানা নামে পুলিশের এক ...