মেলার সময় বাড়ছে না

স্টাফ রিপোর্টার :: দেশের রাজস্ব আয়কে আরও একধাপ বাড়াতে এবং করদাতাদের মধ্য বাড়তি উৎসাহ যোগাতে প্রতি অর্থবছরে আয়কর মেলার পর আয়কর সপ্তাহ উদযাপিত হয়।

কিন্তু এ বছর আর ঘটা করে সেই সপ্তাহ হচ্ছে না। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-এনবিআর সূত্র জানিয়েছে, গত কয়েকবছর নভেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে আয়কর সপ্তাহ উদযাপিত হয়েছে।

কর অঞ্চলগুলো এসময় বিশেষভাবে সেজেগুজে থাকে করদাতাদের জন্য। ঢাকার ১৭টি কর অঞ্চল এবং চট্টগ্রাম, গাজীপুর, বগুড়া, ময়মনসিংহ, রংপুর, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট ও রবিশালসহ সারাদেশের বিভিন্ন কর অঞ্চলে সপ্তাহব্যাপী এই মেলার আয়োজন করা হয়। যা ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত চলে।

এখানেও করদাতারা আয়কর মেলার আমেজ পান। আয়কর মেলার মতো কর অঞ্চলে গিয়েও এসময় মানুষ কর ও রিটার্ন জমা দিতে পারেন।  কিন্তু এ বছর আর সেই সপ্তাহের আয়োজন করা হচ্ছে না।

তবে মেলার পরিবেশে কর অঞ্চলে এ মাসের ৩০ তারিখ পর্যন্ত রিটার্ন জমা নেয়া হবে। গত ১৩ নভেম্বর রাজধানীসহ সারাদেশে আয়কর মেলা শুরু হয়েছে।

ঢাকায় আয়কর মেলা চলছে রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে। মেলার আজ ষষ্ঠদিন চলছে। ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকালই মেলার শেষদিন। এজন্য যারা এখনো কর বা রিটার্ন দেননি, তারা আগামীকালের মধ্যে মেলায় গিয়ে জমা দিয়ে আসতে পারেন।

এনবিআরের তথ্য অনুযায়ী আয়কর মেলা প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলবে। আজ ষষ্ঠদিন পর্যন্ত প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকার আয়কর আদায় হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ আশা করছে, এবারের মেলায় ২ হাজার কোটি টাকার কর আদায় হবে। এনবিআরের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা সৈয়দ এ মুমেন রোববার বলেন, গত কয়েকদিনে আয়কর মেলা উৎসবে পরিণত হয়েছে।

সবচেয়ে আগ্রহ বেশি দেখা যাচ্ছে তরুণদের। তারা স্বতস্ফূর্ত হয়ে করমেলায় এসে কর রিটার্ন দাখিল করে যাচ্ছেন। আয়কর মেলার সময় বাড়ানো হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এনবিআরের ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকাল সোমবারই শেষ হচ্ছে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা।

কোনওভাবে এই সময় বাড়ানোর সুযোগ নেই। যারা মেলায় এসে কর দিতে চান, তাদের আগামীকালের মধ্যেই জমা দিতে হবে। ‘তবে চলতি অর্থবছরে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত কর ও রিটার্ন দাখিলের সুযোগ রয়েছে।

যারা মেলায় আসতে পারেননি, তারা কর অঞ্চলে গিয়ে রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন।’ তিনি বলেন, অন্যান্য বছর আয়কর সপ্তাহের আয়োজন করা হলেও এবার সেটি হচ্ছে না।

তবে মেলার পরিবেশে কর অঞ্চলে গিয়ে রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন করদাতারা।

রিটার্ন দাখিল না করলে কি হবে?

সাধারণভাবে কোনও ব্যক্তির আয় দুই লাখ ৫০ হাজার টাকার বেশি হলেই তাকে আয়কর দিতে হবে। ব্যতিক্রম হিসেবে নারী এবং ৬৫ বছর বা তদূর্ধ্ব বয়সের করদাতার আয় তিন লাখ টাকার বেশি, প্রতিবন্ধী করদাতার আয় চার লাখ টাকার বেশি, গেজেটভুক্ত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধার আয় চার লাখ ২৫ হাজার টাকার বেশি হলে স্বাভাবিক নিয়মেই তাঁকে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে হবে। আয়কর অধ্যাদেশ অনুসারে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আয়কর রিটার্নে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট করদাতার ওপর সংশ্লিষ্ট রাজস্ব কর্মকর্তা জরিমানা আরোপ করতে পারবেন। একই সঙ্গে রাজস্ব কর্মকর্তা ৫০ শতাংশ অতিরিক্ত সরল সুদ বা বিলম্ব সুদও আরোপ করতে পারবেন। তবে উপকর কমিশনার কর্তৃক বাড়ানো সময়ে কোনও করদাতা রিটার্ন জমা দিলে জরিমানা আরোপ হবে না। তবে অতিরিক্ত সরল সুদ ও বিলম্ব সুদ আরোপ হবে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

'টপ এমপ্লয়ার' এর স্বীকৃতি পেল বিএটি বাংলাদেশ

‘টপ এমপ্লয়ার’ স্বীকৃতি পেল বিএটি বাংলাদেশ

ঢাকা :: বৃটিশ আমেরিকান ট্যোবাকো বাংলাদেশ প্রথম বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান হিসেবে সম্মানজনক ‘টপ ...