ভারত ৮ উইকেটে সহজ জয়ী

ঢাকা: আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের জয়রথ ছুটছেই। শুক্রবার তারা স্বাগতিক বাংলাদেশকে ৯ বল হাতে রেখেই ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে টানা তৃতীয় জয় তুলে নিয়ে সেমিফাইনালের পথে পা বাড়িয়ে রাখলো।

জয়ের জন্য ১৩৯ রানের মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভারতের বিশ্বসেরা ব্যাটিং লাইন আপ ওপেনার রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলির দ্বিতীয় উইকেটে তোলা ১০০ রানের সুবাদে অনেকটা হেসে খেলেই জয় তুলে নেয় স্বাগতিকদের বিপক্ষে। রোহিত শর্মা মাত্র ৪৪ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৫৬ রান করে মাশরাফি বিন মুর্তজার বলে নাসিরের তালুবন্দী হলে অবশিষ্ট কাজ সমাধা করেন অধিনায়ক ধোনি ও কোহলি। কোহলি ৫০ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় ৫৭ রান তুলে অপরাজিত থাকেন। আর অধিনায়ক ধোনি মাত্র ১২ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় ২২ রান তুলে অপরাজিত থাকেন। রবিচন্দন অশ্বিন অসাধারণ বোলিং নৈপূণ্যের জন্য ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় মনোনীত হন।

এর আগে ইনিংসের তৃতীয় ওভারে দলকে প্রথম সাফল্য উপহার দেন পেসার আল আমিন হোসেন। ইনিংসের ২.৫ ওভারে ৬ বলে ১ রান করা বাঁহাতি ওপেনার শিখর ধাওয়ানকে বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান তিনি। এ সময় ভারতের সংগ্রহ ছিল ১ উইকেটে ১৩ রান।

এর আগে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চলতি আসরের শিরোপাপ্রত্যাশী ভারতের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশ শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেটে ১৩৮ রান করতে সক্ষম হয়। ফলে ভারতের জন্য জয়ের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৩৯ রান।

টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশ ভারতীয় বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে শুরু থেকেই কোনঠাসা হয়ে পড়ে। তবে ওপেনার আনামুল হক ও শেষ দিকে তুমুল সমালোচিত মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তুলে দলকে সন্মানজনক সংগ্রহ গড়তে সাহায্য করেন।

ইনিংসের শুরু থেকেই এক প্রান্ত আগলে রাখা আনামুল হক শেষ পর্যন্ত লেগ স্পিনার অমিতহ মিশ্রের কেরা ইনিংসের ১৩ ওভারের শেষ বলে তিনি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন ৪৩ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৪৪ রানের দায়িত্বশীল ইনিংস খেলে। এ সময় দলীয় সংগ্রহ ১৩ ওভারে ৫ উইকেটে ৮২ রান। তারও আগে দলের বিপর্যয় আরও ঘনীভূত করে ইনিংসের ১১তম ওভারে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ সামির বলে ২১ বলে ৪ চারে ২৪ রান করা মুশফিক তালুবন্দী হন ভিরাট কোহলির। এ সময় ১১ ওভার শেষে বাংলাদেশের দলীয় সংগ্রহ ছিল ৪ উইকেটে ৬৭ রান। শেষ পর্যায়ে দীর্ঘদিন ধরে ধুকতে থাকা মাহমুদুল্লাহ মাত্র ২৩ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৩৩ রানের হার না মানা ইনিংস খেলে দলকে এগিয়ে নেন।

ভারতের পক্ষে লেগ স্পিনার অমিত মিশ্র ৪ ওভারে মাত্র ২৬ রানের খরচায় ৩ উইকেট তুলে নেন। রবিচন্দন অশ্বিন ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রানে ২ উইকেট তুলে নেন।

এর আগে ইনিংসের চতুর্থ ও পঞ্চম ওভারে টানা তিন উইকেট হারিয়ে মারাত্মক বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। পঞ্চম ওভারের প্রথম বলেই ভুবনেশ্বর কুমার বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান ১ রান করা সাকিব আল হাসানকে। এর আগে চতুর্থ ওভারে রবিচন্দন অশ্বিন পর পর ফেরান তামিম ইকবাল (৬) ও আসরে প্রথম খেলতে নামা শামসুর রহমানকে।ফলে ২১ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে স্বাগতিকরা।

আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টেন পর্বের গ্রুপ ২ এর গুরুত্বপূর্ণ খেলায় টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয় আসরের অপরাজিত দল ভারত। ফলে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাট করার সুযোগ পায় স্বাগতিক বাংলাদেশ। ইতিমধ্যেই চির প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান ও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে চলতি আসরে বেশ প্রত্যয়ী সূচনা পেয়েছে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ ২০ ওভার ১৩৮/৭ (আনামুল ৪৪, মাহমুদুল্লাহ অপরাজিত ৩৩, মুশফিক ২৪, নাসির ১৬, মিশ্র ৩/২৬, অশ্বিন ২/১৫, কুমার ১/২১, সামি ১/২৯)

ভারত ১৮.৩ ওভার ১৪১/২ (কোহলি অপরাজিত ৫৭, রোহিত ৫৬, ধোনি অপরাজিত ২২, ধাওয়ান ১, মাশরাফি ১/২৩, আল আমিন ১/৩৮)

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: রবিচন্দন অশ্বিন

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মুশফিকের ক্যারিয়ারসেরা ইনিংসে টাইগারদের লড়াকু স্কোর

ষ্টাফ রিপোর্টার :: একেই বলে মি. ডিপেন্ডেবল। দলের মহাবিপদের মাঝেও যিনি ঠাণ্ডা ...