বিভক্ত ঢাকার তফসিল দেবে না ইসি

সদ্য বিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশন (ডিসিসি) নির্বাচনের তফশিল দেবে না বর্তমান নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আর এ বিষয়ে আগামীকাল মঙ্গলবার সরকারকে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে।

সোমবার দুপুরে কমিশন সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ড. এটিএম শামসুল হুদা।

এরআগে তিনি ডিসিসি এবং কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে অপর কমিশনারদের নিয়ে বৈঠক করেন।

হুট করে ডিসিসি নির্বাচনের সময় বেধে দেওয়ার সমালোচনা করে সিইসি বলেন, ‘সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থেই কমিশন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কারণ তফশিল ঘোষণা করে কিছু দূর অগ্রসরের পরেই বর্তমান কমিশন বিদায় নিচ্ছে। এরপর নতুন কমিশন আসবে।’

তিনি বলেন, ‘দুটি কমিশন একটি নির্বাচন করেছে- এমন নজির আমাদের সামনে নেই। এতে সমন্বয়ের সমস্যা হতে পারে। এজন্য আমরা নির্বাচন করার পক্ষে নই।’

শামসুল হুদা বলেন, ‘সুষ্ঠু এবং সুন্দর নির্বাচনে স্বার্থে বর্তমান কমিশন এতদিন যেসব সংস্কার করেছে, সরকারের তাড়াহুড়োয় তা কিছুটা প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হচ্ছে। এ জাতীয় সার্বিক বিষয় উল্লেখ করে আমরা সরকারকে আগামীকাল চিঠি দেব।’

ডিসিসি নির্বাচনের বিষয়ে আইন করার আগে কমিশনের সাথে আলোচনা না করায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সমালোচনা করে তিনি আরো বলেন, ‘এখন এ ধরনের পিক্যুইলিয়র সিচুয়েশন হলে আমরাই বা কী করব? আমাদের সাথে কেউ কোনো পরামর্শ করে আইন করেনি। আমাদের সাথে পরামর্শ করলে তাদেরকে এসব সমস্যা নিয়ে বুদ্ধি দিতে পারতাম। সুতরাং আপনারা আরো কিছুদিন আগে অথবা পরে আইন করেন।’

তবে নরসিংদীর মেয়র নির্বাচন কমিশন করে যাবে জানিয়ে সিইসি বলেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচন ঘিরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আগামী ১৫ ডিসেম্বর থেকে ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত সিটি এলাকায় সাঁড়াশি অভিযান চালানো হবে।

এছাড়া আজ নির্বাচন কমিশন কুসিক নির্বাচন নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠক করে। এতে পুলিশ, র‌্যাবসহ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

বৈঠক শেষে জানানো হয়, কুসিক নির্বাচনের আগের এই অভিযানে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ছাড়াও বহিরাগত সন্ত্রাসীরা যাতে সেখানে অবস্থান করতে না পারে, তা নিশ্চিত করা হবে। এছাড়া কুসিক নির্বাচনে দেড় হাজারের বেশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে।

জানা গেছে, বৈঠকে ডিসিসি নির্বাচন ৯০ দিনের মধ্যে করা সম্ভব নয়, এমন অবস্থানে অনড় ছিলেন দুই নির্বাচন কমিশনার মুহাম্মদ ছহুল হুসাইন ও এম সাখাওয়াত হোসেন।

প্রসঙ্গত, আইন অনুযায়ী ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডট কম/ঢাকা

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

দক্ষিণ আফ্রিকায় ৪ বাংলাদেশির মৃত্যু

নিউজ ডেস্ক :: দক্ষিণ আফ্রিকায় দোকানে আগুন লেগে একই পরিবারের তিনজনসহ ৪ ...