বিনা খরচের ইন্টারনেট সেবা চালু রবিবার

internet.orgইন্টারনেট ডট ওআরজি (www.internet.org) প্রকল্পের আওতায় রবিবার থেকে সারাদেশে চালু হচ্ছে বিনা খরচে ইন্টারনেট সেবা। ফেসবুকের এ প্রকল্পের আওতায় ডেটা খরচ ছাড়াই ইন্টারনেট ব্যবহার করা যাবে। প্রাথমিকভাবে এ প্রকল্পের আওতায় ফেসবুক, কয়েকটি সংবাদপত্র, জাতীয় তথ্য বাতায়ন, সার্ভিস পোর্টাল, ন্যাশনাল ফর্ম পোর্টালসহ ২৬টি ওয়েবসাইট বিনামূল্যে দেখা যাবে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ জানিয়েছে, প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক রবিবার বেলা ১১টায় রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে প্রকল্পটির উদ্বোধন করবেন। অনুষ্ঠানে ফেসবুকের কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাও উপস্থিত থাকবেন বলে জানানো হয়েছে।

ইন্টারনেট ডট ওআরজি এ্যাপের সাহায্যে মোবাইলে ও সরাসরি কম্পিউটারে বিনা খরচে ওই সব ওয়েবসাইটের বিস্তারিত দেখা যাবে। এ্যাপের মাধ্যমে অথবা সরাসরি ইন্টারনেট ডট ওআরজিতে লগ ইন করে ওয়েবসাইটে প্রবেশ করা যাবে। যেখানে জিরো ফেসবুক আর জিরো উইকিপিডিয়ার সঙ্গে কনটেন্ট সেবাদাতাকে যুক্ত করে ইন্টারনেট সেবা দেওয়া হবে। এ প্রকল্পে প্রথমসারির কিছু সংবাদপত্র, জাতীয় তথ্য বাতায়ন, সার্ভিস পোর্টাল, ন্যাশনাল ফর্ম পোর্টালসহ কিছু সরকারি ওয়েবসাইট বিনামূল্যে পাওয়া যাবে। পর্যায়ক্রমে সরকারের সব সেবা সাইট ও গুরুত্বপূর্ণ নাগরিক সেবার কনটেন্ট এতে যুক্ত হবে।

বাংলাদেশে এ প্রকল্পে সহায়তা করছে মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান রবি। প্রাথমিকভাবে শুধু রবি গ্রাহকরাই এ সুবিধা পাবেন। তবে পরবর্তীতে অন্য অপরেটররাও এতে যুক্ত হবেন। পর্যায়ক্রমে সরকারের সব সেবাদানকারী ওয়েবসাইট ও গুরুত্বপূর্ণ নাগরিক সেবার কনটেন্টও এ সুবিধার আওতায় আসবে।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে সর্বপ্রথম বাংলাদেশে এ বিনামূল্যের ইন্টারনেট চালুর আলোচনা গুরুত্ব পায়। তখন বিশ্বের আরও কয়েকটি দেশের মতো বাংলাদেশেও ইন্টারনেট ডট ওআরজি প্রকল্প চালুর প্রতিশ্রুতি দেন ফেসবুকের কর্মকর্তা আঁখি দাস। এরপর এটুআই, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ, ফেসবুকসহ সংশ্লিষ্ট পক্ষের উদ্যোগে বিষয়টি এগিয়ে নিয়ে গত ২১ এপ্রিল প্রকল্পটি চালুর সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু প্রকল্পটির সঙ্গে যুক্ত হতে মোবাইল অপারেটরদের রেগুলেশন সংক্রান্ত জটিলতা ও কনটেন্ট প্রোভাইডারের অভাবে তা ভেস্তে যায়। অবশেষ ১০ মে প্রকল্পটি চালু হচ্ছে।

এশিয়া, আফ্রিকাসহ বিভিন্ন মহাদেশের ইন্টারনেট সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কাছে ইন্টারনেট পৌঁছানোই এর মূল লক্ষ্য। ইতোমধ্যে তানজানিয়া, কেনিয়া, কলাম্বিয়া, ঘানা, জাম্বিয়া ও ভারতে এ প্রকল্প চালু হয়েছে। এ উদ্যোগে আরও যুক্ত রয়েছে স্যামসাং, এরিকসন, মিডিয়াটেক, ওপেরা সফটওয়্যার, কোয়ালকম ও নকিয়া।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সংসদ নির্বাচন ঘিরে ‘সাইবার যুদ্ধের’ শঙ্কা

ষ্টাফ রিপোর্টার :: বাংলাদেশে রাজনৈতিক প্রচার-প্রচারণার ক্ষেত্রে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, বিশেষ করে ...