বই আলোচনায় ছড়াকার সোহেল মল্লিকের ছড়ার বই’মজার পড়া ৫০ ছড়া’

Shohel Mollik

প্রচ্ছদ : মনিরুজ্জামান পলাশ

সোহেল– তোমাকে স্বাগতম

————————————-
মাহমুদউল্লাহ
      বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় সোহেল মল্লিকের ছড়া পড়েছি। কিছুদিন আগে তার ‘ মজার পড়া ৫০ ছড়া ‘ নামের বইটি আমার হাতে এসেছে। লক্ষ্য করেছি, তার শিশুতোষ ছড়ার মধ্যেও তাৎপর্যপূর্ণ বক্তব্য রয়েছে। তাতে শিশুতোষ ছড়ার মান বা পরিবেশ বিন্দুমাত্র ক্ষুন্ন হয়নি। যেমন : একটি ছড়ার কথা বলছি– ছড়াটির নাম ‘ অফিসের ফুল ‘। মৌমাছি ও প্রজাপতি দু’বোন মতিঝিলের একটি অফিসে ঢুকে পড়ে। তারা মধুরস নিতে টেবিলের পাশে রাখা ফুলগাছে বসে। অফিসের ফুলে মধু পায় না। ওটা প্লাস্টিকের ফুল। আমাদের মধুহীন মেকি সভ্যতার প্রতি বিরূপ ধারনা নিয়েই বিদায় নিতে হলো তাদের। ছড়াটির অংশবিশেষ এখানে তুলে ধরা হলো—
         মধু নেই মধু নেই
         অফিসের ফুলে
         প্লাসটিক গাছটায়
         বসেছিল ভুলে।
               (মজার পড়া ৫০ ছড়া, পৃষ্ঠা-০৭)
         এই বইতে শিশুদের জন্য বেশ কিছু মিষ্টি মিষ্টি ছড়া রয়েছে। ছড়ার ‘ থিম ‘ যদি মনকে স্পর্শ করে, তাই হয়ে ওঠে চিরায়ত ছড়াসাহিত্য। ছোটদের-বড়দের– সবার কাছে প্রিয় হয় সেসব ছড়া। সে ধরনের ছড়া রয়েছে সোহেল মল্লিকের এই ‘ মজার মজার ৫০ ছড়া ‘ গ্রন্থে। ‘ বাবুই ‘ নামের ছড়াটিতে সে বাবুই পাখিকে তুলে ধরেছে এভাবে—
        এই বাসাটার মালিক কে গো
        সেই কথাটা বলি–
        বুয়েট থেকে পাশ করা নন;
        বাবুই প্রকৌশলী।
              (মজার পড়া ৫০ ছড়া, পৃষ্ঠা-০৯)
      বাবুই পাখি সত্যিই বড় প্রকৌশলী– সে কথা কৌশলে বলেছে এই ছড়াকার।
      কেবল শিশুতোষ নয়, বড়দের জন্যও ছড়া লিখে থাকে ছড়াকার সোহেল মল্লিক। তার রচিত সমাজমনস্ক ছড়া আমার চোখে পড়েছে।
       অনেকের ধারণা, আর্থ-সামাজিক-রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে রচিত বক্তব্যধর্মী ছড়া –সাহিত্য বা শিল্পসম্মত নয়। এই ধারণাটি একেবারেই ভুল। অনেকটা নাচতে না জানলে উঠান বাঁকার মতো। যদি যুক্তি ও বাস্তবতা থাকে এবং কথার জোর থাকে তা হলে বক্তব্যধর্মী ছড়াই হতে পারে শ্রেষ্ঠ সাহিত্য।
        বুড়োগুরুজন সেজে উপদেশ দিতে আমি চাই না। একটা পরামর্শ দিতে চাই সোহেল এবং একইসঙ্গে আমার তরুণ ছড়াকার বন্ধুদের। ছড়া লিখতে গিয়ে ‘ দলদাস ‘ কিংবা কোনো সরকারের অনুগত ‘ মুখপাত্র ‘ হতে যাবে না। ও পথে হেঁটে অনেক ছড়াকারকে হারিয়ে যেতে দেখেছি। তারা ছড়া সৃষ্টির আসল চেতনা ‘ দ্রোহ ‘ শক্তি হারিয়ে ফেলেন। স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ দৃষ্টিতে পৃথিবীকে দেখার শক্তি তারা অর্জন করতে পারেন না। পুরস্কারসহ নানা প্রাপ্তি তাদের ঘটে। কিন্তু ভেসে যান গড্ডালিকা প্রবাহে। সোহেল, তোমাকে আমার প্রাণঢালা ভালোবাসা ও শুভেচ্ছা।
           —————————–——
মজার পড়া ৫০ ছড়া
সোহেল মল্লিক
প্রকাশকাল : ফেব্রুয়ারি ২০১৭
প্রকাশক : রাতুল গ্রন্থপ্রকাশ, ঢাকা
প্রচ্ছদ : মনিরুজ্জামান পলাশ
মূল্য : ২৭০ টাকা
Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘মধ্যবর্তিনী’

নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘মধ্যবর্তিনী’

স্টাফ রিপোর্টার :: দীপ্ত টিভিতে ১৪ জুলাই শুরু হতে যাচ্ছে নতুন ধারাবাহিক ...