ব্রেকিং নিউজ

ফাল্গুনের সাজ

ফাল্গুনের সাজষ্টাফ রিপোর্টার :: ফাল্গুন মানেই হলুদ-লাল পাড়ের শাড়ি আর বাহারি ঢংয়ের সাজ। এরই ঐতিহ্য ধরেই ফাল্গ–নের পোশাকে এখন এসেছে একটু ভিন্নতা। লাল-হলুদের পাশাপাশি ফাল্গুনের পোশাকে স্থান করে নিয়েছে আরও কিছু রং। এই উৎসবে নিজেদের একটু ভিন্নভাবে ফুটিয়ে তুলতে ছেলেরাও পিছিয়ে নেই।

ফাল্গ–নে সাধারণত হালকা শীত ও গরম থাকে। তাই সাঁজটা সেভাবে দিতে হবে যাতে দীর্ঘ সময় থাকে। যেহেতু শীতকাল তাই ফাল্গ–নের সাঁজ সম্পর্কে ওমেন্স ওয়ার্ল্ডের পরিচালক ফারনাজ আলম বলেন, মুখ আলতো করে মুছে নিয়ে এসপিএফ ৫০+ সম্পন্ন একটি ভালো মানের সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। এতে রোদেও আপনার ত্বক সুরক্ষিত থাকবে। সাঁজটা যাতে অনেক সময় থাকে সে জন্য মেকআপের আগে কিছু সময় মুখে বরফ ঘষে নিন।

তবে মনে রাখতে হবে সাঁজটা হালকা হলে ভালো হয়। চোখে স্মোকি আই শ্যাডো আর আই ভ্রুটা ডার্ক করে নিতে হবে, মুখে ফাউন্ডেশন না লাগিয়ে ফেস পাউডার লাগাতে পারেন তাহলে ভালো হবে। আর চুলের ক্ষেত্রে বাঁধতে চাইলেও সেটা আঁটসাঁট না হয়ে খুব হালকা বাঁধন হতে পারে। চুলে মেসি ভাব রাখলে ভালো লাগবে। তিনি বলেন, ‘চুলটা থাকবে অগোছালো, কিন্তু এর মাঝেও থাকতে হবে ছন্দ।’ পশ্চিমা ধাঁচের পোশাক পরলে সামনের চুলটা মেসি ভাব এনে পেছনে হালকা কার্ল করে ছেড়ে দেয়া যেতে পারে। আর ফাল্গ–নে চুল সাজাতে ফুল ছাড়া চলে না। বাহারি রঙের ফুল চুলে পরতে পারেন।

এ ছাড়া বেলিফুল দিয়ে ব্যান্ড বানিয়ে ভিন্নভাবে সাজিয়ে নিতে পারেন। ফারনাজ আলম বলেন, ব্যান্ডের চারদিকে ফুল না দিয়ে একপাশে বেশি করে ফুল গুঁজে ব্যান্ডের বাকি জায়গাটা চেইন কিংবা ফিতা দিয়ে ঢেকে দিতে পারেন। আবার দু’পাশে বেলিফুল গুঁজে ব্যান্ডের মাঝখানটাতেও চেইন বা ফিতা দিয়ে ঢেকে নেয়া যাবে। এ ক্ষেত্রে দু’পাশ থেকে চুল সামনে এনে খোলা ছেড়ে দিলে অথবা ফুলের ব্যান্ডের সঙ্গে চুল খোলা রাখলে বেশি ভালো লাগবে।

সারাদিন ঘোরাফেরার পর চুলের যত্ন নেয়া প্রয়োজন। তাই নারকেল তেল+মেথি গুঁড়া+ডিমের সাদা অংশ ভালো করে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিয়মিত ব্যবহার করলে চুলে সিল্কি, নমনীয় ও কোমলভাব বজায় থাকবে।

এই সময় আমাদের ত্বকে দেখা দেয় অনেক ধরনের সমস্যা। আর তাই এ সময় আমাদের নিতে হয় বাড়তি কিছু যত্ন। বিশেষ করে আমাদের চুলের ক্ষেত্রে।

এই সময় আমাদের চুল শুষ্ক, রুক্ষ হয়ে ওঠে। কারো কারো চুলের গোড়া ফেটে যায় এবং চুলের গোড়ায় খুশকি জমে ও অতিরিক্ত চুল পড়তে দেখা যায়। তাই এসব সমস্যার সমাধান আপনি ঘরে বসেই দূর করতে পারেন।

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রহিমা আক্তার মৌ

‘জল ও জীবন’

রহিমা আক্তার মৌ :: আমাদের প্রাণপ্রিয় নগরী ঢাকা বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত। অপ্রিয় ...