ফাইনালে ভারত-শ্রীলঙ্কা মুখোমুখি

ঢাকা: উপমহাদেশেই থাকছে এবারের আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। আগামী রোববার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে উপমহাদেশীয় ফাইনালে শ্রীলঙ্কার প্রতিপক্ষ হচ্ছে ভারত।

শুক্রবার মিরপুরে ভারত বিরাট কোহলি ও অন্যদের ব্যাটিং নৈপূণ্যে ৫ বল হাতে রেখেই ৬ উইকেটের সহজ জয় তুলে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। জয়ের জন্য ১৭৩ রানের কঠিন লক্ষ্য তারা করতে নেমে ইনিংসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত প্রোটিয়া বোলাদের বিপক্ষে প্রভাব বিস্তার করে খেলে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। এ থেকেই ইনিংসের শেষ ওভারের প্রথম বলেই জয়ের ঠিকানায় পৌঁছে যায় তারা।

বিরাট কোহলি মাত্র ৪৪ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৭২ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলে দলকে এ জয় উপহার দিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন।অন্য ব্যাটসম্যানরাও তার কাজ সহজ করতে কার্যকর ব্যাটিং করেন। ইনিংসের শুরুতেই ওপেনার রোহিত শর্মা মাত্র ১৩ বলে ৪ চার ও ১ ছক্কায় ২৪ রান তুলে পথ দেখান সতীর্থদের। আস্থার সঙ্গে ব্যাট করে ৩০ বলে ২ চার ও ১ ছক্কায় ৩২ রান করা ওপেনার আজিঙ্কা রাহানেও দলকে অনেকটাই এগিয়ে নেন। যুবরাজ সিং ১৭ বলে ২ চারে ১৮ রান করে ইমরান তাহিরের শিকার হলেও সুরেশ রায়না ছোটখাটো একটা ঝড় উপহার দেন। মাত্র ১০ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় ২১ রান করে তিনি যখন সাজঘরে ফেরেন দল তখন একেবারেই জয়ের দ্বারপ্রান্তে। অবশিষ্ট কাজ একাই সমাধা করেন কোহলি। ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ও মনোনীত হন তিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকার বোলারদের হতাশার দিনে বোরান হেনড্রিকস ৩১ রানে ২ উইকেট নেন। ওয়েইন পারনেল ও ইমরান তাহির একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে ব্যাটসম্যানদের কার্যকর ব্যাটিংয়ে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে শক্তিশালী ভারতীয় ব্যাটিং লাইন আপের বিরুদ্ধে বড় লক্ষ্য দাঁড় করাতে সক্ষম হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। নির্ধারিত ওভার শেষে তারা ৪ উইকেটে ১৭২ রান সংগ্রহ করে। ফলে ভারতের জন্য জয়ের লক্ষ্য নির্ধারিত হয় ১৭৩ রানের।

শুক্রবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে চতুর্থ বলেই ওপেনার কুইন্টন ডি কককে হারায় প্রোটিয়ারা। তবে অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিসকে নিয়ে ভালোই প্রতিরোধ গড়েছিলেন হাশিম আমলা। কিন্তু ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে অফ স্পিনার রবিচন্দন অশ্বিন ১৬ বলে ৪ চারে ২২ রান করা আমলাকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরৎ পাঠান। এরপর ১৪তম ওভারে দলকে আরেক দফা শঙ্কামুক্ত করেন অশ্বিন। মাত্র ৪১ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৫৮ রানের অসামান্য ইনিংস খেলা দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিসকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরৎ পাঠান তিনি। ইনিংসের ১৩তম ওভারে দলীয় শতরানের কোঠা অতিক্রম করে দক্ষিণ আফ্রিকা।

তবে প্রোটিয়াদের শেষ পর্যন্ত বড় সংগ্রহ নিশ্চিত করে দেন জেপি ডুমিনি ও ডেভিড মিলার। ডুমিনি ৪০ বলে ১ চার ও ৩ ছক্কায় ৪৫ রান তুলে অপরাজিত থাকেন। মিলার ১২ বলে ২ চার ও ১ ছক্কায় ২৩ রান তুলে অপরাজিত থাকেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার অগ্রযাত্রার পথে বাধা হয়ে দাঁড়ান কেবল অশ্বিন। ৪ ওভার বোলিং করে মাত্র ২২ রানে প্রতিপক্ষের সেরা তিন ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে পাঠান এই অফ স্পিনার। ভুবনেশ্বর কুমার ৩৩ রানে ডি ককের উইকেটটি নেন।

শুক্রবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকা দলের নিয়মিত অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস দলে ফেরায় বাদ পড়েন ফারহান বেহারদিন। অন্যদিকে অপরিবর্তিত দল নিয়েই মাঠে নামেন ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

দক্ষিণ আফ্রিকা ২০ ওভার ১৭২/৪ (ডু প্লেসিস ৫৮, ডুমিনি ৪৫, মিলার অপরাজিত ২৩, আমলা ২২, ডিভিলিয়ার্স ১০, অশ্বিন ৩/২২, কুমার ১/৩৩)

ভারত ১৯.১ ওভার ১৭৬/৪ (কোহলি অপরাজিত ৭২, রাহানে ৩২, রোহিত ২৪, রায়না ২১, যুবরাজ ১৮, হেনড্রিকস ২/৩১, তাহির ১/৩০, পারনেল ১/৩৩)

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: বিরাট কোহলি।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সুপার ফোরে বাংলাদেশ

ডেস্ক নিউজ ::  আবুধাবির শেখ জায়েদ ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আফগানিস্তানের কাছে বিশাল ...