প্রবল বর্ষণে লক্ষ্মীপুরে রবী শষ্যের ব্যাপক ক্ষতি

প্রবল বর্ষণে লক্ষ্মীপুরে রবী শষ্যের ব্যাপক ক্ষতি জহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: লক্ষ্মীপুরে প্রবল বৃষ্টিতে ডুবে নষ্ট হয়ে গেছে নিন্মাঞ্চলের সাড়ে ৩ হাজার হেক্টর জমির রবী শষ্য। নষ্ট হয়েছে সয়াবিন, বাদাম, মরিচ, বরোধান, ডাল জাতীয় ফসলসহ রবীশষ্য।

বুধবার, বৃহস্পতিবার, শুক্রবার ও শনিবারের প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে জমিতে পানি জমে নষ্ট হয়েছে এসব ফসল। কৃষকরা বলছেন, এবার লোকসানই গুনতে হবে তাদের। তবে ফসলী জমিতে জমে থাকা পানি দ্রুত বের করে দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে বলে জানায় কৃষি বিভাগ।

লক্ষ্মীপুর কৃষি অধিদপ্তরের তথ্য মতে, জেলার কয়েক হাজার হেক্টর জমির রবীশষ্য বৃষ্টির পানিতে ডুবে গেছে। এর মধ্যে রয়েছে বোর ধান, সয়াবিন, বাদাম, মরিচ, ডালসহ রবীশষ্য।

খোজ নিয়ে জানা যায়, টানা বৃষ্টিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে সদর উপজেলা ভবানীগঞ্জ, তোরাবগঞ্জ, পেয়ারাপুর এলাকার নিন্মাঞ্চলের ফসলি মাঠ। এতে সব হারিয়ে হতাশ হয়ে পড়েছে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা। আর তাদের লোকসান গুনতে হবে লাখ লাখ টাকা।

সরেজমিনে সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ মিয়ার বেড়ী এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, বিস্তৃর্ণ সয়াবিনের ক্ষেত বৃষ্টির পানির ডুবে গেছে। নষ্ট হয়েছে সয়াবিন। কৃষকরা ফসল রক্ষায় পাম্প মেশিন বসিয়ে পানি নিষ্কাশন করছে। আবার কোথাও কোথাও কৃষক হাত দিয়ে জমি থেকে পানি সরানোর চেষ্টা করছে।

চর মনসা গ্রামের সয়াবিন চাষী হানিফ মিয়া জানান, স্থানীয় সমিতি থেকে ঋণ নিয়ে দুই একর জমিতে সয়াবিনের আবাদ করেছেন, সয়াবিনের বাম্পার ফলনের আশায়। কিন্তু প্রবল বৃষ্টির কারণে তার ক্ষেত পানির নিচে তলি সয়াবিন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এতে দিশেহারা তিনি।

কবির হোসেন, আবু বেপারী, খোকন মিয়াসহ কয়েকজন কৃষক জানায়, প্রবল বৃষ্টির কারণে তাদের কৃষি আবাদের জমি নষ্ট হয়ে গেছে। এতে তাদের লাভের তুলনায় লোকসানই বেশি হবে।

লক্ষ্মীপুর জেলা কৃষি অফিসের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. আবুল হোসেন বলেন, যেসব জমিতে বৃষ্টির পানি জমে আছে। ওই সকল জমির জমানো পানি দ্রুত বের করে দেওয়ার জন্য মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা পরামর্শ দিচ্ছেন। তাছাড়া যে সকল জমিতে বরোধান ৮০ ভাগ ফাঁকা শুরু হয়েছে, সে সব ধান দ্রুত কেটে পেলার জন্য কৃষকদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এতে অনেকটা লোকসানের হাত থেকে রক্ষা পাবে কৃষক।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. গোলাম মোস্তফা বলেন, প্রবল বৃষ্টিতে ক্ষেতে ফসল নষ্ট হচ্ছে। ক্ষেত থেকে পানি সরিয়ে দিতে কৃষকদের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা পরামর্শ দিচ্ছেন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রাজীবের সুরে অনিতা-সুমন

রাজীবের সুরে অনিতা-সুমনের ‘বন্ধু হতে চাই’

স্টাফ রিপোর্টার :: রাজীব হোসাইনের সুর ও সঙ্গীতে নতুন একটি দ্বৈত গানে ...