পরিমিত খাবার খেয়ে অনেক দিন সুস্থ থাকা যায়: বিশেষজ্ঞ

পরিমিত খাবারের কারণে যে কেউ সুস্থ থাকবে-এই কথাগুলো সবসময়ই আমরা আমাদের চিকিৎসকদের কাছ থেকে শুনে থাকি৷ তবে সুস্থ থাকার জন্য যা বিশেষ প্রয়োজন তাহলো শরীরে যথেষ্ট পরিমাণে আয়রনের সরবরাহ৷

মাছ এবং মাংস হলো আয়রনের সবচেয়ে বড় উৎস৷ মাংস থেকে শরীর সরাসরি ১৫ থেকে ৩৫ শতাংশ আয়রন গ্রহণ করতে পারে৷ শাক-সব্জি থেকে যা মাত্র ৫ শতাংশ৷ কথাগুলো জানান ডায়েট বিশেষজ্ঞ পেট্রা রেনার ভেবার৷ তিনি আরো বলেন, “একজন পুর্ণবয়স্ক মানুষের খাবারের তালিকায় সপ্তাহে অন্তত দুই থেকে তিনদিন মাংস থাকা জরুরি৷ এর পাশাপাশি অবশ্যই শাক-সব্জি থাকতে হবে৷ এবং সেসব সব্জি যেগুলো আয়রন সমৃদ্ধ৷”

তবে ভিটামিন সি, প্রোটিন এবং ল্যাকটিক এ্যাসিড থেকেও আয়রন গ্রহণ করতে পারে শরীর৷ প্রতিদিনের খাবারের সঙ্গে একগ্লাস অরেঞ্জ জুস, সঙ্গে সালাদ অথবা খাবারের শেষে ইয়োগুর্ট অর্থাৎ দই শরীরকে দিতে পারে প্রয়োজনীয় আয়রন৷

পেট্রা রেনার ভেবার আরো জানান, যারা নিরামিশাষী তাদের খাবার পর চা বা কফি পান না করাই ভালো কারণ ট্যানিনের কারণে শরীর আয়রন গ্রহণ করতে পারে না, তাতে বাধা পড়ে৷ একই কারণে ফসফেট এবং প্রয়োজনীয় অক্সালিক এ্যাসিডও শরীর গ্রহণ করে না৷ প্রয়োজনীয় এসব উপাদান পালং শাক এবং আলুতে প্রচুর পরিমাণে থাকে৷

তবে যারা নিয়মিত মাছ-মাংস খান তারা খাবারের পর চাইলে চা বা কফি পান করতে পারেন৷ ট্যানিন এক্ষেত্রে কোন সমস্যা করবে না৷ কারণ মাছ বা মাংস থেকে আসা আয়রন শরীর দ্রুত গ্রহণ করতে পারে৷ এগুলো শরীরে মিশে যাওয়ার জন্য তৈরি থাকে৷ এই আয়রনগুলোকে বলা হয় রেডিমেড আয়রন৷

পরিমিত খাবারের তালিকায় প্রতিদিন যা থাকা প্রয়োজন তাহল: সকালের নাস্তায় বিভিন্ন শস্য দিয়ে তৈরি মুসলির সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের ফল, এক গ্লাস অরেঞ্জ জুস, দুপুরের খাবারে মাংস, সঙ্গে আলু এবং বিভিন্ন ধরণের সব্জি, রাতের খাবারে রুটি, মাছ এবং বিটরুট৷ চিকিৎসকরা একে বলছেন ব্যালান্সড ডায়েট -এই খাবারের পর এক কাপ চা বা কফি অনায়াসে চলতে পারে৷

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মহিলা ও শিশু হাসপাতাল উদ্বোধন

নতুন মহিলা ও শিশু হাসপাতাল উদ্বোধন

স্টাফ রিপোর্টার :: মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি ...