নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন মহলের শোক

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন মহলের শোকস্টাফ রিপোর্টার :: রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হয়ে নিহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

পৃথক শোকবার্তায় তারা নিহতদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সিঙ্গাপুর থেকে জানান, চারদিনের সরকারি সফরে সিঙ্গাপুরে অবস্থানরত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হয়ে নিহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন।’

প্রেস সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহতদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী দুর্ঘনায় আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন।

নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হয়ে হতাহতের ঘটনায় বিভিন্ন মহলের পক্ষ থেকে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করা হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আজ এক শোকবার্তায় নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করেছেন।
তিনি আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আজ এক শোকবার্তায় নিহতদের প্রতি গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্তে হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক অপর এক শোকবার্তায় নেপালের কাঠমান্ডুতে বেসরকারি বিমান ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হয়ে হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি এবং সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি এক শোকবার্তায় নেপালে উড়োজাহাজ দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনায় গভীর দুঃখ ও শোক প্রকাশ করেছেন।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম অপর এক শোকবার্তায় সিলেটের রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের নেপালের কয়েকজন শিক্ষার্থীসহ ৬৭ জন যাত্রী বহনকারী এই বিমান দুর্ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি নিহতদের পরিবার ও স্বজনদের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা ও নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করে বলেন, আহতদের চিকিৎসার জন্যে প্রয়োজনে বাংলাদেশ থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নেপালে প্রেরণ করা হবে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, বীরবিক্রম গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের প্রতি তিনি গভীর সমবেদনা জানান।

নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা ও মানসিক সুস্থতায় সহযোগিতা প্রদানের জন্য প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের নিয়ে গঠিত একটি কমিটিকে ইতোমধ্যে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নিযুক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া নিহত ব্যক্তিদের লাশ নিজ বাড়িতে পৌঁছাতে সব ধরনের সহযোগিতা করতে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে পৃথক একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। পরিস্থিতি মনিটরিং করার জন্য মন্ত্রণালয়েও একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। কন্ট্রোল রুমে যোগাযোগের নম্বর ৯৫৪৫১১৫, ৯৫৪৯১১৬।

সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় হতাহতের খবরে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন ও তাদের সংকট পরিস্থিতিতে ধৈর্য ধারণ করার অনুরোধ জানান। শোকবার্তায় তারা নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা এবং আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা এস২-এজিইউ ফ্লাইটের দুঃখজনক দুর্ঘটনায় যাত্রী ও ক্রুদের প্রাণহানিতে নোবেল বিজয়ী প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

সোমবার এক শোকবাণীতে তিনি বলেন, ‘আমি মহান সৃষ্টিকর্তার নিকট দুর্ঘটনায় মৃতদের বিদেহী আত্মার শান্তির জন্য প্রার্থনা করছি। আমি তাদের শোকসন্তপ্ত পরিবারদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি এবং তারা যেন এই অপূরণীয় শোক ও ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারেন সেজন্যও মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করছি।’

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ব্যক্তিগত দুঃখ-বেদনাকে এক সঙ্গে ভাগ করে নেন দুজনে। তেমনি ভাগ করে নেন হাসি-আনন্দের জন্য মেলা সময়কেও। বঙ্গবন্ধুর এই দুই কন্যার সম্পর্ক অত্যন্ত দৃঢ়। যখনই সময় পান এক সঙ্গে থাকতে চেষ্টা করেন। অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে এমনই এক স্নিগ্ধ সময় কাটাচ্ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার বোন শেখ রেহানা। একজন দাঁড়িয়েছিলেন সিডনি শহরকে ব্যাকগ্রাউন্ড করে। আর অপরজন তার সেই হাসি মুখ মোবাইলের ক্যামেরায় বন্দি করছিলেন। সে সময় এই অসাধারণ মুহূর্তটি ক্যামেরাবন্দি করেন আলোকচিত্রী ইয়াসিন কবির জয়। ২০১৭ সালের তোলা ছবিটি শনিবার বিকেলে নিজের ফেসবুকে শেয়ার করেন। এরপরই ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। ছবির ক্যাপশনে ইয়াসিন কবির জয় লেখেন, ‘অন্য আলোয়, মমতাময়ী বঙ্গবন্ধু কন্যাদ্বয়। আদরের ছোট বোন শেখ রেহানার সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশের মানুষের কাছে রেখে যাওয়া বঙ্গবন্ধুর দুই আমানত

বঙ্গবন্ধু কন্যাদ্বয়ের ছবি ভাইরাল

স্টাফ রিপোর্টার :: ব্যক্তিগত দুঃখ-বেদনাকে এক সঙ্গে ভাগ করে নেন দুজনে। তেমনি ভাগ ...