নারী দিবসে তাহমিনা শিল্পী’র কবিতা “নূপুর”

নারী দিবসে তাহমিনা শিল্পী’র কবিতা “নূপুর”“নূপুর”

-তাহমিনা শিল্পী

হাঁটি হাঁটি পা পা করে, এক্কা-দোক্কা খেলার ছলে, শিখেছিলাম দৌড়।

ঘর পেরিয়ে, উঠোন ছেড়ে মন ফড়িঙের ডানায় উড়ে তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে,

স্বপ্নে বিভোর দু’চোখ মেলে দুপায়ে তা থৈ, তা থৈ সুর ছড়িয়ে ছুঁতে চাইতাম নীল আকাশের ওই রামধনুটারে।

তাইতো; তখন বাবা আমার ছোট্ট ছোট্ট দু’টি পায়ে ভালবেসে পড়িয়ে ছিলেন নূপুর।

ভেবেছিলেন; নূপুর পায়ে ঝুমুর ঝুমুর ছন্দে, হাঁটব আমি, নাচবে বাবার মন যে, জানতো কি সে?

ঘর বদলের দিনযাপনে সেই নূপুর- ই বেরী হয়ে বাঁধবে আমায়, সংসারের-ই রঙ্গে!

বাবার হাত বদল হয়ে; একদিন- আমার বর হল, ঘর হল, হল সংসার!

ভাবনা জুড়ে তখন স্বপ্ন শুধু রুমুঝুমু সুর -ছন্দে; ভালবাসার বীণায় বাঁধবো নতুন তার।

কিন্তু একি হায়! স্বামী আমার ভীষন দামী, আমি যেন ঘরের কোণের ক্ষুদ্র এক সামগ্রী।

তার-আমার, নেইতো কোন দ্বন্দ্ব তবুও কেবল নারী বলেই, স্বামী আমায় সদাই করে ব্যঙ্গ।

চোখে আঙুল দিয়ে সে-ই আমায় বুঝিয়ে দিলো বাহির আমার নয়।

যদিওবা কর্মে-গুনে আমার চেয়ে সে উচ্চতর নয়!

সব ভুলে তাই নতুন করে শিখে নিলাম ভালো থাকার নতুন কৌশল?

এখনও আমি নূপুর পড়ি, চারদেয়ালের মধ্যিখানেই বন্দি থাকি,

রান্নাঘরের ছোট্ট জানলায় উঁকি দিয়ে ঝাঁপসা চোখে মাঝেমাঝে একটু শুধু আকাশ দেখে নেই;

এক চিলতে সেই নীল-ই আমায় সেথায়, ভালো থাকার প্রেরনা যোগায়।

জেনে রেখো হে স্বামী!

আমি নই যে শুধুই রমনী, সংসারের যুদ্ধ ময়দানে আমি তোমার সহযোদ্ধাও হতে পারি!!

০৭.০৩.১৬

লেখকের ইমেইল: tahmina_shilpi@yahoo.com

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ডে-কেয়ার আইন চূড়ান্ত পর্যায়ে: চুমকি

ডে-কেয়ার আইন চূড়ান্ত পর্যায়ে: চুমকি

স্টাফ রিপোর্টার :: মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি ...