দাবি বাস্তবায়ন শুরু হলে ঘরে ফিরবে শিক্ষার্থীরা: ইলিয়াস কাঞ্চন

ইলিয়াস কাঞ্চনস্টাফ রিপোর্টার :: শিক্ষার্থীদের যেসব দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে সেগুলো যদি রোববার থেকে বাস্তবায়ন শুরু হয় তাহলে তাদের ঘরে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন নিরাপদ সড়ক চাই’র (নিসচা) চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।

শুক্রবার (৩ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, প্রথম কাজ হলো রাস্তায় যারা ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করেন তাদের নিজেদের লাইসেন্সগুলো ঠিক করা। এজন্য অধিদফতর ও মন্ত্রণালয় থেকে যেন নির্দেশনা আসে। এছাড়া অনেকে ডাণ্ডাওয়ালা গাড়ি ব্যবহার করার উপযুক্ত না হয়েও ডাণ্ডা দিয়ে গাড়ি ব্যবহার করছেন। আইন অমান্য করে মন্ত্রীরা উল্টো দিকে চলছেন। আপনারা জাতির কাছে বলেন যে আমরা আর করবো না। আমরা লজ্জিত, অপমানিত। সন্তানদের কাছ থেকে শিক্ষা পেয়েছি আমরা আর এটা করবো না, নিয়ম মেনে চলবো। বাবারা তোমরা ঘরে ফিরে যাও। এভাবে বলেন নিশ্চয়ই সন্তানরা ঘরে ফিরে যাবে।

চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, সব অধিদফতরগুলো যদি তাদের কর্মকাণ্ডগুলো শুরু করে দেয় তাহলে আমার সন্তানদের উদ্দেশে বলবো তোমরা অবশ্যই ঘরে ফিরে যাবে, লেখাপড়া করবে। বাবা-মায়ের কাছে থাকবে। প্রয়োজনে আবারও যদি কোনো অসুবিধা হয়, তখন অবশ্যই আমরা তোমাদের সঙ্গে থেকে আবার রাজপথে নামবো।

তিনি বলেন, গত ২৫ বছরে আমি মানসিকভাবে অনেক কষ্ট পেয়েও থেমে যাইনি। আজকে এই অবস্থা থেকে বাঁচতে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে এসেছে। তারা উপলব্ধি করতে পেরেছে যে এ অবস্থার পরিবর্তন দরকার। না হলে তাদের প্রতিদিনই জীবন দিতে হবে। প্রতিদিন জীবন দেওয়ার চেয়ে প্রতিবাদ করে সাময়িক অসুবিধা হলেও দাবি আদায় করা ভাল। সেজন্য আজকে তারা রাস্তায় নেমে এসেছে। আমি তাদের সঙ্গে শুরু থেকেই সংহতি প্রকাশ করে এসেছি। তাদের যৌক্তিক দাবিগুলোকে আমি সমর্থন করে এসেছি।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, দায়িত্বশীল যারা সরকারে ও পরিবহন সেক্টরের নেতৃত্বে আছেন তাদের দায়িত্বহীন কথাবার্তা আজকে পরিবহন সেক্টর যে অমানবিক হয়েছে তার জন্যে আজকের এই মানববন্ধন। এর মাধ্যমে আমি সরকারকে বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই এটি মানুষের প্রাণের দাবি। এদেশের মানুষ আর সড়কে মরতে চায় না। পঙ্গুত্ব বরণ করতে চায় না।

ইলিয়াস কাঞ্চনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনের অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, বিআরটিএর সাবেক চেয়ারম্যান ও নিরাপদ সড়ক চাই’র উপদেষ্টা আইয়ুবুর রহমান, মানবাধিকার কমিশনের প্রতিনিধি সিরাজুল ইসলাম, বাস থেকে ফেলা দেওয়ার পর নিহত ছাত্র পায়েলের মামা সোহরাওয়ার্দি বিপ্লব, কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসরের সভাপতি লায়লা হাসান প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ক্রেন থেকে ভারি মালামাল মাথায় পড়ে ২ শ্রমিক নিহত

ষ্টাফ রিপোর্টার :: রাজধানীর শ্যামপুরে বড়ইতলা এলাকায় কাজ করার সময় একটি নির্মানাধীন ...