তৌহিদ শাকীল’র কবিতা ‘জাতিশ্বর’

তামান্না সুলতানা তুলিজাতিশ্বর

-তৌহিদ শাকীল

চোখে নোনা জল,

কন্ঠে কাতর জীবন জলের গান।

মানুষ, ওরা প্রকৃতির সন্তান।

তবু, মানুষের মাঝে মূল্য পায় না প্রাণ।

ওরা সাগরের নোনাজলে ভাসমান, নিম্নবর্গ,

ইতর মানব,

নিজভূমে নেই ঠাঁই, ওখানে তো সব পুঁজির

দালাল, রাষ্ট্র দানব।

মূল্য কি আছে? তাই, যেমন ভাগ্য, করবে বরণ,

হোক, যদি হয়, হোক না মরণ!

তাতে কিবা আসে যায়?

মূল্য কি আছে তায়?

কি আছে ওদের? শুধু ‘নেই’-‘নেই’।

দাবী আদায়ের ভাষা জানা নেই,

ওদের শরীরে পুষ্টিও নেই, ওরা তো শেখেনি

প্রখর রোদের গান।

ওদের কান্না কে বা শোনে বল? এদের সবার

পাষাণ হৃদয়, এতটুকু নেই টান।

কোথা বল আছে বিচলিত হবে এমন উদার দিল?

ওদের কান্না শোনে শুধু গাংচিল।

ভিনদেশে যেয়ে শ্রমের বদলে একটুকু সুখ একটু সবুজ মাটি,

এইটুকু চাওয়া, হলো বিধিবাম, বঙ্গোসাগরে মৃত্যু গেড়েছে ঘাঁটি।

কৃপণ পৃথিবী, চারিদিকে সব রাষ্ট্র দানব মানব বিমুখ,

সাগরের বুকে সলিল সমাধি রচনায় পায় সুখ।

বাংলায়-ও নয়, বার্মায়-ও নয়,

এশিয়ার কোনো মাটিতেই নয়,

কোথাও নেইকো পার।

মরছে ওরাই,

ক্ষুধা পেটে নিয়ে করছে লড়াই,

সহযাত্রীর সাথে।

কারো দ্বিধা নেই তাতে।

চারিদিকে শুধু মৃত্যুর হানা, অনন্ত হাহাকার।

হয়ত অনেক প্রকৃতি নিষ্ঠ, এখনো মানব,

যারা বেঁচে আছে তাদেরই কন্ঠে ওঠে শুধু ছি: ছি: রব।

সরব মানুষ করছে কি তবু বিদ্রোহ কোনো আজ?

মুনাফার মাপে মূল্য-সূচকে গড়ে ওঠা এ সমাজ।

আত্মা এদের মৃত পড়ে আছে অভ্যেসে দাস হয়ে,

নির্বিকারের মতন তাই তো সব কিছু যায় সয়ে।

মঞ্চে ও মাঠে বিলাসী মানুষ শুনছে সুখের গীত,

আত্মার সুর জলে মিশে যায়, কে বা পায় সম্বিত?

শত যাতনায় তুমুল বিদ্ধ মানুষের চীৎকার

এদের কর্ণে কখনো কি যায়?

ভোগের বিলাসে রসে রসনায়

সুখের দ্রবনে যাদের শ্রবণে

শুধু ভেসে থাকে প্রিয় রতি শীৎকার!

কি হবে বা ক’রে উদাস চিত্ত? ওরা তো কেবল নিম্নবিত্ত,

ওদের খবর নেয় না তো কেউ, ওদের জীবনে দারিদ্র্য চির রোগ,

ভূমির কম্পে দুর্গতি নয়, ওদের জীবনে মানুষ রচিত রাষ্ট্রের দুর্ভোগ।

ওদের জন্য দয়ামায়া ক’রে হবে কি কখনো মহত্ত্ব উপভোগ?

পুঁজির দালাল, প্রগতিবাদীরা নীরবই তো র’বে। এ কোনো ব্যাপার!

কি হবে ওসব ভেবে?

অচ্ছূৎ ওরা, অপাংক্তেয়, কে আর নজর দেবে?

ভাসছে যেখানে, ওখানেই থাক, নীচেই ব্লটিং-পেপার

সময়ই এসব জলের কীটকে অনায়াসে শুষে নেবে। …

জানি অথর্ব, জানি নিষ্প্রাণ,

তবুও বলছি, খাড়া কর কান,

শুনে রাখো এই বেদনাবিদ্ধ করুন কন্ঠস্বর।

এখন যাদের নেই কোনো ঈশ্বর,

প্রাণ হাতে নিয়ে প্রকৃতির মাঝে লীন,

তাদেরও হয়ত চলে যাবে দুর্দিন;

তাদের জন্য হয়ত কখনো এসে যাবে সেই দিন।

তখন দেখবে ওরাই সেখানে প্রবল দাপটে সবল জাতিশ্বর।

 

লেখক: লন্ডন প্রবাসি।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

খুলনা-৬ পাইকগাছা-কয়রা

বাবা ছেলে নাতিসহ আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ১৭ জন

মহানন্দ অধিকারী মিন্টু, পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধ :: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংসদীয় ...