ব্রেকিং নিউজ

তীব্রশীতে বান্দরবানের সীমান্তে কাঁপছে রোহিংগা শিশুরা

তীব্রশীতে বান্দরবানের সীমান্তে কাঁপছে রোহিংগা শিশুরাএনামুল হক কাশেমী, নাইক্ষংছড়ি সীমান্ত থেকে ফিরে :: মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর নির্যাতনে সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের ভুখন্ডে অনুপ্রবেশকারী ও বান্দরবানের নাইক্ষংছড়ি উপজেলার দোছড়ি ইউনিয়নের বাহেরমাঠ সীমান্ত এলাকায় শরনার্থী ক্যাম্পে অবস্থানরত ১৭৩ শিশু প্রচন্ড শীতে কাপঁছে। বয়স্করা কোন মতে মোটা কাপড়ে শীতের ঝাঁপটা সামাল দিতে পারলেও শুন্য থেকে ৭ বছর বয়সী ওই ১৭৩টি শিশু শীতে দাপটে চরমভাবে কষ্ট পাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে এলাকায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বৃদ্ধির ফলে শীতের তীব্রতাও বেড়ে গেছে। শুক্রবার দুপুরে দোছড়ির ওই সীমান্ত এলাকা পরিদর্শনকালে এসব অবস্থা অবলোকন করেছেন এ প্রতিনিধিসহ ৫জন সাংবাদিক।

এলাকা পরিদর্শকালে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বলছেন, নাইক্ষংছড়ি উপজেলার ৪টি সীমান্ত পয়েন্টের শরণার্থী ক্যাম্পে এখনও অবস্থান করছে প্রায় ১৬ হাজার রোহিংগা। এসব রোহিংগার ৩টি ক্যাম্প নানাবয়সী শরণার্থীদের মাঝে প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংস্থা ও সংগঠনের উদ্যোগে কিছু কিছু শীতবস্ত্র বিতরণ করা হলেও দোছড়ি ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বাহেরমাঠ এলাকার পাহাড়ের পাদদেশে স্থাপিত অস্থায়ী রোহিংগা শরণার্থী ক্যাম্পে আশ্রিত ৭৮টি পরিবারের ১৭৩টি শিশুর ব্যবহারের জন্যে নেই কোন শীতবস্ত্র। বয়স্ক রোহিংগা নারী-পুরুষ মোটা কাপড়ের সহায়তা পেলেও বঞ্চিত ওইসব শিশু মোটা কপাড় বা শীতবস্ত্র প্রাপ্তি থেকে।

অপরদিকে সীমান্তের ঘুমধুম ও নাইক্ষংছড়ি সদর ইউনিয়নের ৩টি স্থানে জিরোপয়েন্ট এবং অস্থায়ী শরণার্থী ক্যাম্পে বর্তমানে অবস্থতানরত রোহিংগা শিশুদের অনকেই শীতবস্ত্রের সংকটে ভুগছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সমাজ নেতারা। তবে এ বিষয়ে বিজবি এবং প্রশাসন কর্মকর্তারা বলছেন, রোহিংগা শিশুরাও যাতে শীতবস্ত্র পায় সেই বিষয়ে কাজ চলছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে যে প্রতিবেদন দিল মেডিকেল বোর্ড

ষ্টাফ রিপোর্টার :: বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর প্রতিবেদন ...