ব্রেকিং নিউজ ❯
Home / এনজিও / ঢাকা সাব-এডিটর কাউন্সিলের নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা সাব-এডিটর কাউন্সিলের নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা সাব-এডিটর কাউন্সিলের নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রীস্টাফ রিপোর্টার :: তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, নবম ওয়েজ বোর্ডের বিষয়ে আমরা সাংবাদিক নেতাদের মতামত ও পরামর্শ পেয়েছি। বোর্ডের প্রধান হিসেবে বিচারপতি নিয়োগদান সম্পন্ন হয়েছে। সাংবাদিক ও সংবাদপত্র কর্মচারিদের প্রতিনিধিদের নামও পাওয়া গেছে। ওয়েজ বোর্ডের বিষয়টা ত্রি-পক্ষীয় ব্যাপার। মালিক পক্ষ ছাড়া চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া যাচ্ছে না। মালিকপক্ষের প্রতিনিধির নাম পেলেই নবম ওয়েজবোর্ডের প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। সরকার এ ব্যাপারে সকল সহায়তা করবে। আইনি সহায়তা দেবে। সংবাদপত্রের ব্যাপারে আমাদের মনিটরিং রয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ মে) জাতীয় প্রেস ক্লাবে ঢাকা সাব-এডিটর কাউন্সিলের (ডিএসইসি) নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ডিএসসির সভাপতি কে এম শহীদুল হকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এ কে এম ওবায়দুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ দারা এমপি, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি মুহাম্মদ শফিকুর রহমান ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম¥দ আফজাল।

‘ক্ষমতাচ্যুত রাজাকার সমর্থিত সরকার যাতে আর কখনো দেশ শাসনে না আসে, সেটা নিশ্চিত করাই রাজনীতি ও গণতন্ত্রের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ’ উল্লেখ করে অনুষ্ঠানে হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘পিছু হটলেও জঙ্গি-সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠি এখনো এদিক-ওদিক ছোবল মারতে উদ্যত।

তিনি বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া রাজাকার-জামাতের ঘনিষ্ঠ মিত্র এবং জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকতা করছেন যা শান্তি উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় শত্রুতা। তাই গণতন্ত্রকে নিরাপদ করে দেশে শান্তি ও উন্নয়ন প্রতিষ্ঠায় প্রয়োজন জঙ্গি ও তাদের সঙ্গীদের সমূল উৎপাটন।’ অনুষ্ঠানে ডিএসইসির নব-নির্বাচিত নেতাদের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু আরও বলেন, সহ-সম্পাদকরা সংবাদপত্রে গুরুত্ব বহন করেন। তারা পর্দার আড়ালে থেকে কাজ করেন। সহ-সম্পাদকদের  কাজের ক্ষেত্রে পারদর্শী হতে হয়। এজন্য তাদের বাড়তি সময় দিতে হয়। তাই প্রতিনিয়ত তাদের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয়।

অভিষেক অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ডিএসইসির সাবেক সভাপতি শাহ মুহাম্মদ মুতাসিম বিল্লাহ, কায়কোবাদ মিলন, আল মামুন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মিঞা, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা, সাধারণ সম্পাদক মোরসালিন নোমানী প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা ইনকিলাব পত্রিকার সাংবাদিকদের গণছাঁটাই ও বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধে অনিয়মের তীব্র নিন্দা জানান। এ সময় ডিএসইসির তিন শতাধিক সদস্য উপস্থিতি ছিলেন।

http://www.unitednews24.com/wp-content/uploads/2016/08/Untitled-1-copy-1.jpg

About ahm foysal

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*