ব্রেকিং নিউজ

ড. কামাল হোসেনের এতো অধঃপতন দুঃখজনক

স্টাফ রিপোর্টার :: ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান ড. কামাল হোসেনের এত অধঃপতন হয়েছে, আমি আশ্চর্য হয়ে গেলাম।

বিএনপি তাদের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জ্বালাও-পোড়াও করলো, পুলিশের উপর হামলা করলো, তিনি একটা কথাও বললেন না। বিক্রি হয়ে গেলেন অপশক্তির কাছে, এটা দুঃখজনক।’

শনিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৪ দলের বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির কার্যালয়ের সামনে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘ডিসেম্বর মাস বিজয়ের মাস। ডিসেম্বর মাসে কোনও সময়ই বাঙালি মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাসী দল পরাজিত হয়নি।

সেই পাক-হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করেছিলাম জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে। আওয়ামী লীগ সেই নেতৃত্ব দিয়েছিল, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি সেই নেতৃত্ব দিয়েছিল।

সেই বিজয় থেকেই আমরা বিশ্বাস করি বিজয় মাস এলে জাতি ঐক্যবদ্ধ হয় এবং ঐক্যবদ্ধভাবে অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করে। ডিসেম্বরের নির্বাচনেও একাত্তরের অপশক্তিকে পরাজিত করে আমরা বিজয় লাভ করবো।’

ডিসেম্বর মাস এলেই কেন বিএনপি-জামায়াত জোটের একাত্তরের সেই পরাজয়ের কথা মনে হয় উল্লেখ করে নাসিম বলেন, ‘ডিসেম্বর মাস এলে তারা আতঙ্কিত হয়।

আমরা দেখলাম নির্বাচন কমিশন যখন তফসিল ঘোষণা করলো, ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনকে একাধিকবার নির্বাচনের তারিখ পেছানোর জন্য বলা হলো।

নির্বাচন কমিশন তাদের অনুরোধে তারিখ পরিবর্তন করলো। এই ব্যাপারে আওয়ামী লীগ কিংবা ১৪ দল কেউ আপত্তি করেনি। এরপরও দেখলাম তারা আবার আবদার করলো। ডিসেম্বর মাসে তারা নির্বাচন করতে চায় না। বিজয়ের মাস অতিক্রম করে নির্বাচন করতে চায়। এতেই সন্দেহ হয় ডিসেম্বর মাস এলেই তারা ভয় পায়।’

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে নাসিম আরও বলেন, ‘কেন পুলিশকে আক্রমণ করা হলো? এবারও দেখলাম বাঁশের লাঠি নিয়ে নারী-পুরুষ সবাই দাঁড়িয়ে আছে। আমরা বিস্মিত হলাম দেখে। তারা মনে হয় আগে থেকেই প্রস্তুত ছিল। তাদের চরিত্র এখনও পরিবর্তন হয়নি।’

নাসিম বলেন, ‘আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি ১৬ ডিসেম্বর থেকে আমরা জেলা-উপজেলা পর্যায়ে বিজয় মঞ্চ তৈরি করবো, যেখানে গণসংগীত হবে, আলোচনা সভা হবে। নির্বাচনী প্রচারণার কাছে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের যারা প্রার্থী হবে তাদের পক্ষে কাজ করবো।’

যুক্তফ্রন্ট ১৪ দলের সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত হবে কিনা এক প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, ‘এটা প্রক্রিয়াধীন আছে। অনেকে আসতে চায়, আসতে চাচ্ছে। এ ব্যাপারে আমরা নেত্রীর উপরে সিদ্ধান্ত দিয়েছি। ওনি যেটা সিদ্ধান্ত দেবেন সেটা আমরা মেনে নেবো।’

এর আগে গণআজাদী লীগের সভাপতি এস কে শিকদারের সভাপতিত্বে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে জাসদ সভাপতি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সাধরণ সম্পাদক শিরীন আকতার, জাসদ একাংশের নাজমুল হক প্রধান, ওয়ার্কার্স পার্টির ফজলে হোসেন বাদশা, জেপির শেখ শহিদুল ইসলাম, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, তরিকত ফেডারেশনের নজিবুর বশর মাইজভান্ডারী, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নির্বাচন পর্যন্ত ব্যক্তিগত বৈধ অস্ত্র বহন ও প্রদর্শন নিষিদ্ধ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ::  একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বহিনী বৈধ অস্ত্র ...