টিআইবি’র সাথে ডেনমার্ক সরকারের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

টিআইবি’র সাথে ডেনমার্ক সরকারের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরষ্টাফ রিপোর্টার :: ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র চলমান প্রকল্প বিল্ডিং ইন্টেগ্রিটি ব্লকস ফর ইফেকটিভ চেইঞ্জ (বিবেক) – এ সহায়তা অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে ডেনমার্ক সরকারের পক্ষে ড্যানিশ রাষ্ট্রদূত মিকাইল হেমনিটি উন্থার আজ রবিবার (২০ নভেম্বর) টিআইবি’র সাথে ২০১৭-২১ মেয়াদী এক সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেছেন।

অপরাহ্নে ঢাকায় টিআইবি’র প্রধান কার্যালয়ে ডেনমার্ক সরকারের পক্ষে ড্যানিশ রাষ্ট্রদূত মিকাইল হেমনিটি উন্থার ও টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে এই সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন। সমঝোতা স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে দূতাবাসের এবং টিআইবি’র উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সমঝোতা স্মারকের আওতায় ‘বিবেক’ প্রকল্পে ডেনমার্ক সরকার দুই পর্যায়ে মোট ২২ কোটি টাকা প্রদান করবে। প্রথম পর্যায়ে ২০১৭-২০১৯ পর্যন্ত টিআইবি’র চলমান ‘বিবেক’ প্রকল্পের কার্যক্রম পরিচালনায় এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০১৯-২০২১ পর্যন্ত ‘বিবেক’ পরবর্তী পর্যায়ের জন্য ব্যবহৃত হবে।

বাংলাদেশ সরকারের সাথে ডেনমার্ক সরকারের সহযোগিতার অংশ হিসেবে টিআইবি-কে প্রদত্ত উক্ত অনুদান বাংলাদেশের সাথে উন্নয়ন সম্পৃক্ততা অব্যাহত রাখার জন্য ড্যানিশ সরকারের প্রতিশ্রুতির স্বাক্ষর বলে পুনর্ব্যক্ত করেন ড্যানিশ রাষ্ট্রদূত। তিনি বলেন, “বাংলাদেশে দুর্নীতি প্রতিরোধ এবং অধিকতর সুশাসন প্রতিষ্ঠায় টিআইবি’র উদ্যোগে সহায়তা অব্যাহত রাখতে পেরে ড্যানিশ সরকার আনন্দিত।”

তিনি আরো বলেন, “ ড্যানিশ সরকার মনে করে কার্যকর দারিদ্র্য হ্রাসকরণে অধিকতর অগ্রগতি এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহ (এসডিজি) অর্জনে দুর্নীতি প্রতিরোধ ও  সুশাসন অপরিহার্য।” টিআইবি’র কার্যক্রমে অংশীদারিত্ব ও সহায়তার জন্য ড্যানিশ রাষ্ট্রদূত এবং তার মাধ্যমে ড্যানিশ সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে ড. জামান পারস্পরিক অংশীদারিত্বের আওতায় বাস্তবায়নাধীন ‘বিবেক’ প্রকল্পটি জবাবদিহিমূলক শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠায় প্রাতিষ্ঠানিক, আইনী এবং  নীতি নির্ধারণী কাঠামো শক্তিশালী করার পাশাপাশি বাংলাদেশে দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলনকে গভীরতর ও বিস্তৃত করবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আওতাধীন এনজিও ব্যুরো কর্তৃক অনুমোদিত চলমান বিবেক প্রকল্পটির (অক্টোবর ২০১৪ – সেপ্টেম্বর ২০১৯) মূল লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশে দুর্নীতি হ্রাসকরণে অধিকতর অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টিতে সহায়তা করা। এ প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হল উদ্দিষ্ট প্রতিষ্ঠান/সেবা খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য আইন, নীতি, প্রক্রিয়া সমৃদ্ধতর করতে অ্যাডভোকেসি কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং পাশাপাশি সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য জনগণের মধ্যে চাহিদা সৃষ্টি ও দুর্নীতিকে প্রতিহত করার জন্য নাগরিকদের অংশগ্রহণ ও সক্ষমতা বৃদ্ধি করা।

উল্লেখ্য, ডেনমার্ক সরকারের পক্ষে ড্যানিশ দূতাবাস (অ্যাম্বেসি অব ডেনমার্ক – ইওডি) এর সাথে যৌথভাবে ‘বিবেক’ প্রকল্পে আরো সহযোগিতা প্রদান করছে যুক্তরাজ্যের ডিপার্টমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট (ডিএফআইডি), সুইডেনের সুইডিশ ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন এজেন্সি (সিডা), সুইজারল্যান্ডের সুইস এজেন্সি ফর ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড কো-অপারেশন (এসডিসি)। ইওডি, ডিএফআইডি ও সিডা ২০০২ থেকে এবং এসডিসি ২০০৯ থেকে টিআইবি’র দুর্নীতিবিরোধী কার্যক্রমে সহায়তা প্রদান করে আসছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আমার মা ফাউন্ডেশন এর চাঁদপুর সদর আহবায়ক কমিটি গঠন

আমার মা ফাউন্ডেশন এর চাঁদপুর সদর আহবায়ক কমিটি গঠন

চাঁদপুর :: আমার মা ফাউন্ডেশন এর চাঁদপুর সদর আহবায়ক কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত ...