ছাত্রলীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে আহত-৭

সংঘর্ষজহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: আধিপত্য বিস্তার ও ছাত্রী উত্যক্তকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুর শহরের উত্তর তেমহনী ও দালাল বাজার ডিগ্রী কলেজে ছাত্রলীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে ঘটনা ঘটেছে।

এসময় দালাল বাজার ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি বেলাল হোসেন অনিক ও আবদুল করিমসহ উভয় পক্ষের ৭নেতা-কর্মী আহত হয়েছে। আহতদের লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল ও স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শহরের উত্তর তেমুহনী এলাকায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহমুদুননবী সোহেল ও সাধারণ সম্পাদক রাকিব হোসেন লোটাস গ্রুপ এবং দুপুরে দালাল বাজার ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি বেলাল হোসেন অনিক ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা কনক ক্বারী গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষে ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যায় শহরের উত্তর তেমহনী ও আলীয়া মাদ্রাসা  এলাকায় রাস্তায় গাছ ফেলে সড়ক অবরোধ করে ৭টি সিএনজি ও একটি বাস ভাঙচুর করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

খবর পেয়ে পুলিশ ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পুলিশ ও কলেজ সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে দালাল বাজার ডিগ্রি কলেজের একাদ্বশ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল শ্যামলী আইডিয়াল কলেজের ছাত্র ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা কানক ক্বারী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বহিরাগতদের নিয়ে কানক ক্বারীর নেতৃত্বে ২০/২৫ জনের ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা দালাল বাজার ডিগি কলেজ ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে।

কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি বেলাল হোসেন অনিকসহ অন্যরা  এর প্রতিবাদ করে এবং অধ্যক্ষের রুমে নিয়ে কনক ক্বারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এক পর্যায়ে ছাত্রলীগ নেতা কনক ক্বারীর গ্রুপ বেলাল হোসেন অনিক গ্রুপের ওপর হামলা চালায়।

এনিয়ে দু-পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় বেলাল হোসেন অনিক ও আবদুল করিমসহ উভয় পক্ষের ৫জন আহত হয়। এ ঘটনার জের ধরে সন্ধ্যায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহমুদুননবী সোহেল ও রাকিব হোসেন লোটাস গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এসময় উত্তর তেমুহনী এলাকায় ৭টি সিএনজি ও একটি বাস ভাংচুর করে। এসময় ২জন আহত হয়। এর আগে আলিয়া মাদ্রাসা এলাকায় সড়কে গাছ ফেলে সড়ক অবরোধ করে তারা। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সড়ক অবরোধ তুলে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ঘটনার পর থেকে দু-গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

দালাল বাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. শাহ আলম জানান, একাদ্বশ শ্রেণীর ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করাকে কেন্দ্র করে দু-পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়েছে। এসময় কয়েকজন আহত হয়েছে। পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

এ বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহমুদুননবী সোহেল ও সাধারন সম্পাদক রাকিব হোসেন লোটাসের সাথে মোবাইল ফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের মতামত পাওয়া যায়নি।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবদুল্যাহ আল মামুন ভূঁইয়া জানান, ছাত্রলীগের দু-পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু হবে না

স্টাফ রিপোর্টার :: পৃথিবীর কোনো দেশেই শতভাগ সুষ্ঠু নির্বাচন হয় না। তাই ...