চর মহিউদ্দিন আশ্রয়ণ প্রকল্প: বেদখল হচ্ছে ভূমিহীনদের আশ্রয়

চর মহিউদ্দিন আশ্রয়ণ প্রকল্পমুজাহিদুল ইসলাম সোহেল, নোয়াখালী প্রতিনিধি :: সুবর্ণচর উপজেলা ৫নং চর জুবিলী ইউনিয়নের চর মহিউদ্দিন গ্রামে ভূমিহীনদের আশ্রয় স’লের জমি বেদখল হচ্ছে। প্রভাবশালী মহলের ব্যক্তিরা নামে বেনামে ভূয়া নথির দলিল করে হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফলে বরাদ্দকৃত ভূমি হারিয়ে আশ্রয়হীন হচ্ছে ৮শ পরিবার।

জানা যায়, বর্তমান সরকার ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে ২০০০- ২০০১ অর্থবছরে আশ্রয় প্রকল্পটি আশ্রয়হীনদের জন্য সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে চর মহিউদ্দিন মোজায় ৮২ একর ভূমি ৮০০ আটশত পরিবারের বসবাসের জন্য গড়ে তুলেন। ২০০১ সাল থেকে ২০১০ সাল নাগাদ ৮শত ভূমিহীন অসহায় পরিবারের চাষাবাদ করছিলো। ২০১০ সালে থেকে স্থানীয় প্রভাবশালী মহল ক্ষমতাসীন দলের লোকেদের ছত্রছায়ায় নিজেদের জায়গা দাবি করে ভূয়া নথি দেখিয়ে বহিরাগত কিছু ব্যক্তিকে প্রলোভনে পেলে ভূমি বিক্রির রমরমা বাণিজ্য মেতে উঠেছে।

আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দা সেকান্দার অভিযোগ করে বলেন, আশ্রয়হীনদের জন্য বরাদ্ধকৃত ৮২ একর সরকারী ভূমি দিন দিন দখল করে নিচ্ছে স্থানীয় একটি মহল। প্রতিবাদ করলে বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকজন এসে মারামারিতে লিপ্ত হয় এছাড়াও একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছেবলে জানান তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আশ্রয় প্রকল্পের একাধিব বাসিন্দা বলেন, চর মহিউদ্দিন গ্রামের মৃত রুহুল আমিনের পুত্র ইউসুফ(৪০) মৃত তাসির মাঝির পুত্র কাসেম মাঝি(৪৫) মৃত আব্দুল মোতালেবের পুত্র আজাদ, (৩৫) মৃত সিঙ্গেল মাঝির পুত্র হেঞ্জু, সিরাজের পুত্র রহিম বাহিনী গঠন করে বিগত ৩ (তিন) বছর ধরে আশ্রয় প্রকল্পের বাহিরের জায়গা বলে ভূয়া নথি দেখিয়ে বহিরাগতদের কাছে সরকারী ভূমি বিক্রি করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

ভুক্তভোগী হাতিয়া উপজেলার জাহাজ মারা গ্রামের হাজ্বী মাহবুবুর রহমানের পুত্র আবু তাহের ৮মাস আগে অভিযুক্ত ইউছুফ থেকে কয়েক শতাংংশ জমি ১২ লক্ষ টাকা দিয়ে ক্রয় করেন কিন্তু দীর্ঘ ৮ মাস পেরিয়ে গেলেও আবু তাহেরকে দলিল দিতে পারিনি কথিত জমির মালিক অভিযুক্ত ইউছুফ। দলিল দেয়ার কথা বললে বিভিন্ন তালবাহানা করছেন এবং হুমকি দিচ্ছেন । আশ্রয় প্রকল্পের আরেক বাসিন্দা জানান অভিযুক্ত ইউসুফ আবু তাহেরের কাছে যে জায়গাটি বিক্রি করছেন সেটি আশ্রয় প্রকল্পের বাসিন্দার জন্য সরকারি কমিউনিটি ক্লিনিকের জন্য বরাদ্ধকৃত জায়গা হিসেবে প্রস্তাবণা দেয়া আছে।

এদিকে আশ্রয় প্রকল্পে বসবাসকারী একাধিক বাসিন্দা জানান ইউছুফ বিএনপি সরকার ক্ষমতায় থাকা কালিন সময়ের চর মহিউদ্দিনে বিএনপির নিজের প্রভাব বিস্তার করেন সে থেকে তিনি যে সরকার ক্ষমতায় আসে সে দলে যোগ দিয়ে দলের প্রভাব খাটিয়ে নামে বে-নামে সরকারি ভূমি বিক্রি বাণিজ্য করে আসছেন।

এব্যাপারে ভূমি কর্মকর্তার সাথে আলাপ কালে তিনি জানান কেউ যদি অগোচরে কাউকে প্রলোভনে পেলে সরকারি ভূমি বিক্রি করে তাহলে তিনি দন্ডনীয় অপরাধ করেছেন, এবং এধরনের বেচাকেনাতে কেউ দলিল দেখাতে পারবেন না, বিষয়টি নিয়ে এ কর্মকতার সাথে আলাপ করা অবস্থায় তিনি বিষয়টি মুঠো ফোনের মাধ্যমে সুবর্ণচর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করেন এবং ভূমি অফিসের কর্মকর্তাদের ম্যাপ নিয়ে স্বরজমিনে গিয়ে দেখে ব্যাবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন।

এব্যাপারে আভিযুক্ত ইউছুপের সাথে কথা বললে তিনি বলেন তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা তিনি আবু তাহের নামে কোন ব্যক্তিকে চেনেন না, এর আগে অন্যদের কাছে ভূমি বিক্রির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন এসব জায়গার মালিক আমি এসব জায়গার কাগজ পত্র আমার কাছে আছে, কিন্তু কোন কাগজ পত্র তিনি দেখাতে পারেননি। অসহায় মানুষের মাথা গোজার ঠাঁই টুকু বিক্রি বাণিজ্য মেতে উঠাই আশ্রয় প্রকল্পের বাসিন্দাদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে। তারা অতিদ্রুত এসব অত্যাচারী ভূমি দখলদারদের ব্যবস’া নিতে দূনীর্তি দমন কমিশন(দুদক), স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ সংশ্লিষ্ঠ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

লিঙ্গবৈষম্য

৭২ ভাগ লিঙ্গবৈষম্য কমিয়ে এশিয়ার মধ্যে দ্বিতীয় বাংলাদেশ

ডেস্ক নিউজ :: গত বছরের তুলনায় অনেক বেশি উন্নতি করে বিশ্বের সব ...