ব্রেকিং নিউজ

চরমোন্তাজে উৎসবমূখর পরিবেশে ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচি

চরমোন্তাজে উৎসবমূখর পরিবেশে ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচিরাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) :: উৎসবমূখর পরিবেশে উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালীর চরমোন্তাজে অনুষ্ঠিত হলো ‘ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক সবুজ উপকূল ২০১৭’ কর্মসূচি। ২৪ অক্টোবর মঙ্গলবার চরমোন্তাজ এ, ছাত্তার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সবুজ উপকূল অনুষ্ঠানে উপকূলের পড়ুয়াদের প্রতি সবুজ সুরক্ষার আহবান জানান বিশিষ্টজনেরা।

‘এসো সবুজের আহ্বানে, গড়ি সবুজ উপকূল’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, উপকূল সুরক্ষায় আগামী প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে। উপকূল অঞ্চল বিভিন্ন ধরণের প্রাকৃতিক দুর্যোগের শিকার। ঝড়-জলোচ্ছ্বাস এ অঞ্চলে প্রতি বছর হানা দেয়। এইসব কারণে আজকের পড়ুয়ারা ঝুঁকির মুখে আছে। শিক্ষা ক্ষেত্রে তাদের রয়েছে নানান সমস্যা। এইসব সমস্যা মোকাবেলায় আগামী প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে। শুধু গাছ লাগানো নয়, এর পাশাপাশি চারপাশের পরিবেশ রক্ষায় সজাগ হতে হবে। পরিবেশ ও ব্যাপারে সচেতন হতে হবে। লেখালেখির মধ্যদিয়ে শিক্ষার্থীরা অনেক তথ্য আহরণের পাশাপাশি সচেতন হয়ে উঠতে পারে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পটুয়াখালী জেলা পরিষদ সদস্য ও রাঙ্গাবালী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ কে সামসুদ্দিন আবু মিয়া। সভাপতিত্ব করেন চরমোন্তাজ এ, ছাত্তার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রুহুল আমীন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক গলাচিপা শাখার ব্যবস্থাপক মো. জাকির হোসেন, উপকূলীয় মহিলা উন্নয়ন সমিতির রিজিওন্যাল কো-অর্ডিনেটর মো. শফিকুল আলম (মাসুদ), স্যাপ-বাংলাদেশের ব্যবস্থাপক মো. ইউসুফ প্রমূখ।

চরমোন্তাজে উৎসবমূখর পরিবেশে ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচিঅনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য দেন সবুজ উপকূল ২০১৭-এর স্থানীয় সংগঠক সাংবাদিক মো. আইয়ূব হোসেন। কর্মসূচির প্রেক্ষাপট ও উপকূলের সার্বিক অবস্থা নিয়ে কথা বলেন সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচির কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী ও আয়োজক প্রতিষ্ঠান ‘উপকূল বাংলাদেশ’-এর পরিচালক উপকূল-সন্ধানী সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম মন্টু। অনুষ্ঠান উপস।থাপনায় ছিল ভেন্যু বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ঈশিতা আক্তার ও দশম শ্রেণীর মো. খবিরুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে পড়ুয়াদের পক্ষ থেকে বক্তব্য দেয় দশম শ্রেণীর মো. সাকিব এবং পরিবেশ পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদন উপস।থাপন করে সপ্তম শ্রেণীর মেহের আফরোজ প্রভা। অনুষ্ঠানের আগে বিদ্যালয়ের পড়-য়াদের একটি দল নদীর তীরবর্তী ভাঙণ কবলিত এলাকায় পরিবেশ পর্যবেক্ষণ করে। মাঠ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত প্রতিবেদন অনুষ্ঠানে উপস্থাপন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচির ব্যানার নিয়ে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বিদ্যালয়ের আশপাশের এলাকা প্রদক্ষিণ করে। গাছের চারা বিতরণ ও রোপণের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের প্রথম অংশ শেষ হয়।

এবার সমগ্র উপকূলে ২০টি কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এসব কর্মসূচিতে ১০০ স্কুলের প্রায় ৭০ হাজার শিক্ষার্থী অংশ নেবে। এ নিয়ে তিন বছরে উপকূলের ২৫৬টি স্কুলে ১ লাখ ৭০ হাজার শিক্ষার্থী সবুজ উপকূল কর্মসূচির আওতায় আসছে। স্কুল শিক্ষার্থীরা পেয়েছে পরিবেশ সচেতনতার বার্তা, যা তাদের প্রাত্যহিক জীবনে কাজে লাগছে।

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সংসদীয় শিশু অধিকার বিষয়ক ককাস গ্রুপের সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ

‘বাল্যবিয়ে বন্ধে বাংলাদেশ হবে বিশ্বের মডেল’

বিশেষ প্রতিনিধি :: সংসদীয় শিশু অধিকার বিষয়ক ককাস গ্রুপের সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ ...