খালেদার জন্য সাতফুট দৈর্ঘের রাজকীয় চেয়ার

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সর্বশেষ রোডমার্চ পরবর্তী মহাসমাবেশ রেলওয়ের পলোগ্রাউন্ড মাঠে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আর এ মহাসমাবেশকে ঘিরে পলোগ্রাউন্ড মাঠে চলছে বিশাল কর্মযজ্ঞ।

তৈরি করা হচ্ছে ২৪০০ বর্গফুটের মঞ্চ আর খালেদার জন্য সাতফুট দৈর্ঘের রাজকীয় চেয়ার।

বিএনপি নেতাদের দাবি, ২০ লাখ লোকের বিশাল উপস্থিতিতে চট্টগ্রামের এই সমাবেশ নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করবে। এই সমাবেশ থেকে আন্দোলনের পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবেন বিএনপি চেয়ারপারসন। তাই এই সমাবেশের মঞ্চ সজ্জা থেকে শুরু করে সার্বিক আয়োজন ত্রুটিমুক্ত রাখতে দফায় দফায় মাঠ পরিদর্শন করে দিক-নির্দেশনা দিচ্ছেন চট্টগ্রাম বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। শুধু তাই নয়, সমাবেশস্থলে খালেদা জিয়ার প্রবেশের জন্য পৃথক ফটক নির্মাণেরও  উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

মঞ্চ প্রস্তুতের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান শাহাবুদ্দিন ডেকোরেটরের ম্যানেজার খন্দকার মানিক আহমেদ তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার জনসভা মঞ্চ হচ্ছে চট্টগ্রামে জনসভার জন্য নির্মিত এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় মঞ্চ। এর আগে এত বড় মঞ্চ কখনো করা হয়নি। ২৪০০ বর্গফুটের এই মঞ্চ হবে ৪০ বাই ৬০ বর্গফুটের। এর আগে ১৯৯৮ সালে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভামঞ্চ ছিল ৪০ বাই ২৪ ফুটের।

তিনি আরো জানান, ফ্যাশন শোর মঞ্চের আদলে ‘টি’ আকৃতিতে তৈরি হবে খালেদা জিয়ার জনসভা মঞ্চে। মাটি থেকে সাত ফুট উচুতে বাঁশ ও কাঠের ফ্রেমে নির্মিত এ মঞ্চে সর্বোচ্চ আড়াই শ’ থেকে তিন শ’ নেতা বসার উপযোগী করে তৈরি করা হচ্ছে।

বিশাল এই মঞ্চ নির্মাণে আনুমানিক ছয় থেকে সাত লাখ টাকা খরচ পড়বে বলে ধারণা করছেন। মঞ্চ থেকে ৪০ ও ৫৫ ফুট দূরে নির্মাণ করা হচ্ছে দুটি নিরাপত্তা বেষ্টনী তথা ব্যারিকেড।

শাহাবুদ্দিন ডেকোরটেরের এই কর্মকর্তা আরো জানান, এই মঞ্চের ডিজাইন ও সাজসজ্জার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে চট্টগ্রামের বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী আহমেদ নেওয়াজকে। এছাড়া বিএনপি চেয়ারপারসনের জন্য কারুকার্য খচিত সেগুন কাঠের দৃষ্টিনন্দন চেয়ারও নির্মাণ করা হচ্ছে।

পলোগ্রাউন্ড মাঠে জনসভা মঞ্চসহ সার্বিক কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে মঞ্চ ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি জাফরুল ইসলাম চৌধুরী এমপি বাংলানিউজকে বলেন, ‘আগামীকাল রোববারের মধ্যে মঞ্চ প্রস্তুতির কাজ শেষ হবে। আমরা তো মাত্র ৪/৫ দিন আগে মাঠ পেয়েছি, তাই কাজ করতে পারিনি।’

মঞ্চ প্রস্তুতিতে কত খরচ হচ্ছে জানতে চাইলে বলেন, ‘নেতা-কর্মীরা সবাই কন্ট্রিবিউট করছে, তাই খরচ কত হচ্ছে হিসাব করা হয়নি।’

তিনি জানান, জনসভা মঞ্চে প্রবেশের জন্য খালেদা জিয়ার জন্য পৃথক গেইটসহ আরো তিনটি গেইট তৈরি করা হবে। পলোগ্রাউন্ড মাঠের পেছনের দেয়াল ভেঙে পলোগ্রাউন্ড কলোনি এলাকায় নির্মিত ওই গেট দিয়ে জনসভার মঞ্চে প্রবেশ করবেন বিএনপি চেয়ারপারসন ও তার সাথে গাড়ি বহরে আসা বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। এছাড়া  পলোগ্রাউন্ড মাঠের রেলওয়ে স্টাফ মসজিদ সংলগ্ন দেয়াল ভেঙে একটি ও সিআরবিস্থ পলোগ্রাউন্ড স্কুলের পাশে আরো একটি গেট করা হবে। নারীদের প্রবেশের জন্য থাকবে পৃথক গেট। এছাড়া সামনের মূল গেটও ভেঙে বড় করা হবে।

এদিকে শাহাবুদ্দিন ডেকোরটের কর্মকর্তা মানিক আরো জানান, রোববারের বিকেলের মধ্যে মঞ্চ প্রস্ততি শেষ হবে।  মঞ্চের বামপাশে মাঠের দক্ষিণ-পশ্চিম কোনে প্যাভেলিয়নের ওপরে নির্মিত হচ্ছে জাসাসের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মঞ্চ। ৯ জানুয়ারি জনসভা শুরুর আগে ও পরে সেখানে অনুষ্ঠিত হবে বর্ণাঢ্য সাস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এদিকে মাঝ মাঠজুড়ে  মাইক স্থাপনের জন্য চলছিল গর্ত খোড়া। এজন্য ঢাকা থেকে এসেছে তাহের মাইক সার্ভিস।

ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডট কম/চট্রগ্রাম প্রতিনিধি

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শীতার্থদের মাঝে ছাত্রলীগ নেতার শীতবস্ত্র বিতরণ

শীতার্থদের মাঝে ছাত্রলীগ নেতার শীতবস্ত্র বিতরণ

জহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: “আদি হতে অন্ত রবে বন্ধুত্বের বৃত্ত” ...