কিশোরগঞ্জে এসএসসির ফরম পূরণে ১ হাজার টাকার স’লে ৩ হাজার আদায়

কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বিভিন্ন স্কুলে এস.এস.সি পরীক্ষার ফরম পূরণে গলাকাটা ফি আদায় হচ্ছে। বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ ফরম পূরণে ১ হাজার টাকার স’লে ৩ হাজার টাকা পর্যন- অতিরিক্ত ফি হাতিয়ে নিচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, যশোদল উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী সাজ্জাদ হোসেন বাবুলের কাছে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ বাবদ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ২ হাজার ৬০০ টাকা দাবি করেছে। এ অবস’ায় তার ফরম পূরণ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।
বাবুল জানায়, বোর্ডের নির্ধারিত ফিতে ফরম পূরণ আমাদের অধিকার। কিন’ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কাউকে জানতে দিচ্ছে না বোর্ডের ফি কত টাকা। আর কোন খাতে কত টাকা ফি নিচ্ছে সঠিকভাবে তার কোন রসিদও দেওয়া হচ্ছে না।

একই অভিযোগ পাটধা কুড়ের পাড় গ্রামের অভিভাবক শাহাবুদ্দিনসহ অনেকের। শাহাবুদ্দিন জানান, তার দুই ছেলে যশোদল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষা দিবে। তার কাছেও জনপ্রতি একই পরিমাণ টাকা দাবি করা হয়েছে। এ অবস’ায় কয়েকজন অভিভাবক বিদ্যালয়ে গিয়ে কর্তৃপক্ষকে চাপ দিলে ফি ২ হাজার ১০০ টাকায় নামিয়ে আনে। তাও লিখিত সিদ্ধান- নয়, মৌখিকভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন’ ফরম পূরণের সময় কর্তৃপক্ষের চেনা জানা কয়েকজন ছাড়া বাকি অন্যদের কাছ থেকে ২ হাজার ৬০০ টাকাই আদায় করছে অভিভাবক জানান।

অভিভাবকদের অভিযোগ, ভর্তির সময় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সেশন ফি নেওয়া হলেও এখন ফরম পূরণের সময় আবারও সেশন ফি নেওয়া হচ্ছে। অথচ এসব শিক্ষার্থী এসএসসি পাশের পর কলেজে ভর্তি হলে সেখানেও সেশন ফি দিতে হবে। প্রতিটি বিদ্যালয়ে মডেল টেস্টের জন্য ৫০০ টাকা করে ফি নিচ্ছে বলে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন।

এ ব্যাপারে যশোদল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদ ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো: শাহাবুদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তারা বিষয়টি নিয়ে মিডিয়ায় কথা বলতে রাজি হননি।

সদরের বিন্নাটি আব্দুল মজিদ উচ্চ বিদ্যালয় ও কামালিয়ারচর উচ্চ বিদ্যালয়েও চলছে একই কায়দায় অতিরিক্ত ফি আদায়ের তান্ডব।

একই অবস’া অন্যান্য বিদ্যালয়গুলোতেও। কিশোরগঞ্জের কোন কোন বিদ্যালয়ে ফরম পূরণে ৩ হাজার ২০০ টাকা থেকে ৪ হাজার ১০০ টাকা পর্যন- নেওয়া হচ্ছে। আর কিশোরগঞ্জের দুটি সরকারি বিদ্যালয়েও বোর্ডের নির্ধারিত ফির চেয়ে অতিরিক্ত টাকা নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অনেক বিদ্যালয় মডেল টেস্টের জন্যও ৫০০/৬০০ টাকা করে নিচ্ছে। এছাড়া বাধ্যতামূলক কোচিংয়ের নামে নিচ্ছে দুই হাজার টাকা করে।

অথচ ফরম পূরণে বোর্ডের নির্ধারিত ফি বিজ্ঞান শাখায় ১ হাজার ১৮৫ টাকা, বাণিজ্য ও মানবিক শাখায় ৯৫৫ টাকা বলে জানা গেছে।

ফরম পূরণে মাত্রাতিরিক্ত ফি আদায়ের বিষয়ে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হারুন আর রশিদের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মডেল টেস্টের জন্য কোন ফি নেওয়ার বিধান নেই। আর অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার বিষয়ে তিনি কোন অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস’া নেবেন বলে জানান।

রুমন চক্রবর্ত্তী, কিশোরগঞ্জ

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

অ্যালবার্ট আইনস্টাইন

বিখ্যাতদের দাম্পত্য জীবন- ৮: অ্যালবার্ট আইনস্টাইন

সাইদুর রহমান  :: কথায় আছে, “যার নয়নে যারে লাগে ভালো, হোক না দেহ ...