কলারোয়ায় ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

কলারোয়ায় ভাইয়ের হাতে ভাই খুনকামরুল হাসান, কলারোয়া(সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি :শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার হেলাতলা গ্রামে মাত্র ১০০ টাকার কারণে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন হয়েছে।
নিহত যুবক রুবেল হোসেন (২৮) হেলাতলা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড উত্তর হেলাতলা গ্রামের (উত্তর দিগং) হাসানুর রহমান দফাদারের পুত্র।
স্থানীয়রা জানায়- ভ্যানচালক রুবেলের কাছে ১’শ টাকা পেতো তারই চাচাতো ভাই আফছার আলীর পুত্র রং মিস্ত্রি আবু সাঈদ (২২)।
শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে সেই টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে দু’জনের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। পরে এক পর্যায়ে সাঈদ কাছে থাকা চাকু (ছোরাগ ) দিয়ে রুবেলের গলায় টান মেরে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কলারোয়া ও পরে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সে মারা যায়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতের লাশ সাতক্ষীরা মর্গে রয়েছে বলে জানা গেছে।
এদিকে, ‘হেলাতলা ইউপি সদস্য আমিরুল ইসলাম জানান- ১’শ টাকাকে কেন্দ্র করে চাচাতো ভাই সাঈদের হাতে খুন হয়েছে রুবেল। ঘাতক সাঈদ রং মিস্ত্রির কাজ করতো। তার পিতা মালয়েশিয়া প্রবাসী। আর রুবেল চাষকাজ করতো ও ভ্যান চালাতো। শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে তাদের বাড়ির পাশে ঘটে যাওয়া মর্মান্তিক ও নৃশংস এ ঘটনায় ঘাতকের মা তরুনা বেগমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।’
নিহত রুবেলের ছোট ভাই ইমামুল ও খালা সাজেদ খাতুন জানান- ‘রুবেলের কাছে ১’শ টাকা পেতো চাচাতো ভাই সাঈদ। ওই টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে তাদের দু’জনের ঝগড়া হয়। সেসময় সাঈদ চাকু দিয়ে রুবেলের গলায় পোচ দিয়ে খুন করে।’
হেলাতলা হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিম জানান- ‘শুক্রবার ওই সময় ভ্যান চালক রুবেল ওই গ্রামের আফসার আলীর ছেলে এইচএসসি পরীক্ষার্থী আবু সাঈদের নিকট পাওনা টাকা ১০০ টাকা চায়। টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে বিবাদ এড়াতে রুবেল পাশের বাড়ির এক বারান্দায় বসে থাকে। কিছুক্ষণ পর চাচাত ভাই আবু সাঈদ ছুটে গিয়ে রুবেলের গলায় ছুরি দিয়ে আঘাত করলে গুরতর জখম হয়।
পরে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।’
কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব দেবনাথ জানান- ‘১’শ টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে বাকবিতন্ডার জের ধরে আনুমানিক সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে উপজেলার উত্তর হেলাতলা গ্রামের আবুল হাসানের পুত্র রুবেল হোসেন (২৮)কে চাকু দিয়ে গলায় টান দেয় তারই চাচাতো ভাই একই গ্রামের আফছার আলীর পুত্র আবু সাঈদ (৩০)। পরে গুরুতর আহতাবস্থায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে সে মারা যায়।
সংবাদ পেয়েই থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঘাতকের মা তরুনা বেগমকে আটক করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত (এ রিপোর্ট লেখার সময়) সাঈদ পলাতক রয়েছে। তাকে আটকের জোর প্রচেষ্টা চলছে।’
ওসি বিপ্লব দেবনাথ আরো জানান- ‘এ ঘটনায় থানায় মামলা রুজুর প্রক্রিয়া চলছে।’
Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সড়ক দুর্ঘটনা

সড়ক দুর্ঘটনায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ নিহত

মুজাহিদুল ইসলাম সোহেল, নোয়াখালী প্রতিনিধি :: নোয়াখালীর বিছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ায় যাত্রীবাহী ...