কবি তাহমিনা শিল্পীকে সংবর্ধিত করলো অন্যধারা সাহিত্য সংসদ

কবি তাহমিনা শিল্পীকে সংবর্ধিত করলো অন্যধারা সাহিত্য সংসদস্টাফ রিপোর্টার :: অন্যধারা সাহিত্য সংসদের আয়োজনে গত ৬ জুলাই (শুক্রবার) তাদের  ১৭২তম নিয়মিত সাহিত্য আড্ডায়- আড্ডার মধ্যমনি হিসাবে সংবর্ধিত হলেন এসময়ের জনপ্রিয় কবি, গল্পকার ও ইউনাইটেড নিউজ টুয়েন্টি ফোর ডট কমের শিক্ষা ও সাহিত্য সম্পাদক তাহমিনা শিল্পী।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই উপস্থিত সবাইকে তার সংক্ষিপ্ত বায়োগ্রাফি পাঠ করে শুনানো হয়।তারপর তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।দেয়া হয় সম্মাননা স্মারকপত্র।

আড্ডায় তিনটি পর্বে কবিকণ্ঠে স্বরচিত মোট ১৫ টি কবিতা পাঠ করা হয়।যার প্রতিটি কবিতাই উপস্থিত কবি ও বিজ্ঞ আলোচক কবিদের কাছে প্রশংসনীয় হয়।আড্ডায় উপস্থিত কবিরা একেএকে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে তার কবিতা নিয়ে আলোচনা করেন।অন্যধারা পাবলিকেশনসহ উপস্থিত কবি লেখকদের অনেকেই নিজের লেখা বই ও পত্রিকা উপহার দেন।তার দীর্ঘায়ু ও সর্বত সাফল্য কামনা করেন।

এ সময় আলোকিত প্রতিদিনের সম্পাদক ও অন্যধারা সাপ্তাহিক পত্রিকার সম্পাদক ও প্রাকাশক সৈয়দ রনো বলেন, একজন প্রখ্যাত কবি তাঁকে বলেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পরে নব্বই দশকে আর কেউ কবি হতে পারেননি।তবে আমি নিশ্চিত করে বলছি, তাহমিনা শিল্পী কেবল কবি-ই হননি তিনি একজন জাত কবি।তার প্রমাণ তিনি তার কবিতার বিষয় নির্বাচনে দিয়েছেন।তিনি সাহসিকতার সাথে দেশের সার্বিক অবস্থা চিত্রায়িত করেছেন।তিনি দেশ ও দশের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকেই লিখছেন।

জনপ্রিয় ছড়াকার রহীম শাহ্ বলেন, তাহমিনা শিল্পী যেমন চমৎকার লেখে তেমনই চমৎকার মনের একজন মানুষ।সে লেখার থেকেও পড়ে খুব বেশি।আর একজন কবি লেখকের এটাই সবচেয়ে বড় গুণ।কারণ, পড়লেই জানা যায়- শেখা যায়।ভাবনার দ্বার উন্মুক্ত হয়।

কবি তাহমিনা শিল্পীকে সংবর্ধিত করলো অন্যধারা সাহিত্য সংসদকবি রেজাউদ্দিন স্টালিন বলেন, একজন কবিকে অতি অবশ্যই বিজ্ঞানমনস্ক হতে হয়।তবে বিজ্ঞান সম্পর্কে তার যথেষ্ট ভালো ধারনা থাকলেই কেবল বিজ্ঞানভিত্তিক কবিতা লেখা সম্ভব।কবি তাহমিনা শিল্পী অত্যন্ত দক্ষতার সাথে তার পরাগায়ণ কবিতার মাধ্যমে তার বিজ্ঞানমনস্কতার প্রমাণ রেখেছেন।সেই সাথে তিনি সহজ সুন্দরভাবে ব্যঙ্গময় শব্দে মানুষকে মানবতার আহবান জানিয়েছেন।

প্রধান আলোচক দৈনিক নয়াদিগন্তের সাহিত্য সম্পাদক কবি জাকির আবু জাফর তাহমিনা শিল্পীর পঠিত কবিতা নিয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খ আলোচনা করেন।তিনি বলেন, কবি তাহমিনা শিল্পী তার কাব্যে বর্তমান সময়কে ধারণ করেন।আর একজন কবি সময়কে ধারণ করতে পারলে সে বর্তমানকে ভবিষ্যতে পৌঁছে দেয়।সে হয়ে উঠে অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যতের।তার লেখনির ভিন্ন একটি ঢং রয়েছে।তার ভাবনা এবং শব্দচয়ন যথেষ্ট আধুনিক।যা এসময়ের অনেকেরই নেই।

অনুষ্ঠানে কবি তাহমিনা শিল্পী তার অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন, আমি নিজেকে কখনও কবি ভাবি না।মুলত আমি একজন পাঠক।সাহিত্যের প্রতি অসীম প্রেম থেকেই কিছু লেখার চেষ্টা করি মাত্র।কেউ যখন আমাকে কবি বলেন, আমি যারপরনাই সংকুচিত হই।তাই আজকের এই আড্ডায় আমাকে আমন্ত্রণ করায় আমি অন্যধারা ও আয়োজনে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ।

কবি ও গল্পকার শাওন আসগরের সভাপতিত্বে আড্ডায় আরও যারা উপস্থিত ছিলেন তারা হলেন, কবি ক্যামেলিয়া আহমেদ, কবি শামসুদ্দিন হীরা, অন্যধারার নির্বাহী সম্পাদক জাকারিয়া নূর, কবি রফিক হাসান, বান্দা হাফিজ,মাসিক ভিন্নমাত্রার সম্পাদক কবি মাসুম বিল্লাহ্,কবি ময়েজ আহমেদ প্রমূখ।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রহিমা আক্তার মৌ

‘জল ও জীবন’

রহিমা আক্তার মৌ :: আমাদের প্রাণপ্রিয় নগরী ঢাকা বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত। অপ্রিয় ...