এসডিজি অর্জনে ভূমিকা রাখবে ‘ওয়াটারসেড’ প্রকল্প

এসডিজি অর্জনে ভূমিকা রাখবে ‘ওয়াটারসেড’ প্রকল্প স্টাফ রিপোর্টার :: টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট লক্ষ্য (এসডিজি) অর্জন করতে পানি সম্পদের যথাযথ ব্যবস্থাপনা দরকার। এ ক্ষেত্রে স্থানীয় পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনায় সকল শ্রেণীর নাগরিকদের সম্পৃক্ততা জরুরি। এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ‘ওয়াটারসেড’ প্রকল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) রাজধানীর গুলশানের স্পেকট্রা কনভেনশন সেন্টারে ওয়াটারএইড বাংলাদেশের আয়োজনে পানির সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনাসংক্রান্ত ‘ওয়াটারসেড: এমপাওয়ারিং সিটিজেন’ শীর্ষক প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা কথাগুলো বলেন।

দি নেদারল্যান্ডস সরকারের সহযোগিতায় ওয়াটার এইড বাংলাদেশ, ডরপ এবং জেন্ডার এন্ড ওয়াটার এ্যালায়েন্স, প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। প্রাথমিভাবে ভোলা জেলার সদর উপজেলায় ডরপ ‘ওয়াটারসেড’ প্রকল্পটি পাইলট আকারে বাস্তবায়ন করবে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশে নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত লিওনি মার্গারেটা কুয়েলিনেয়ার বলেন, এসডিজি-৬-এ সবার জন্য নিরাপদ খাবার পানি এবং স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশনের যে লক্ষ্য নির্ধারণ করা আছে, তা অর্জনে সরকারের সঙ্গে বেসরকারি সংগঠনগুলোর সম্পৃক্ততা জরুরি। গ্রামের মানুষের কথা শুনতে হবে, তাদের মতামতকে বিবেচনা করতে হবে। এ প্রকল্প সরকারের ডেল্টা প্লান বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখবে।

পানিসম্পদ পরিকল্পনা সংস্থার (ওয়ারপো) মহাপরিচালক মো. শরাফত হোসেন খান বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে নিরাপদ পানি প্রাপ্যতা নিশ্চিত করা এখনো আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ। কয়েক দশকে মানুষের পানির প্রাপ্যতা বেড়েছে। সরকার  পানি আইন বাস্তবায়নে ইউনিয়ন ও জেলা পরিষদকে গুরুত্ব দিয়েছে। পানি সম্পদের সঠিক ব্যবস্থাপনা এখন অত্যন্ত জরুরি।

এসডিজি অর্জনে ভূমিকা রাখবে ‘ওয়াটারসেড’ প্রকল্প অনুষ্ঠানে ওয়াটার এইডের বাংলাদেশীয় প্রধান ডা. খায়রুল ইসলাম বলেন, উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় সব মানুষকে সম্পৃক্ত করতে হলে তৃণমূলের মানুষের কথা যাতে কেন্দ্রে এসে পৌঁছায়, তা নিশ্চিত করতে হবে। মানুষ কোথায় গিয়ে তার অধিকারের কথা বলবে, তাকে সেই জায়গার সন্ধান দিতে হবে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পানি উন্নয়ন বোর্ডে অতিরিক্ত মহাপরিচালক মো. মাহফুজুর রহমান, সিমাভির জেষ্ঠ্য কর্মসূচি কর্মকর্তা সারা আহারারি, জেন্ডার এন্ড ওয়াটার এ্যালায়েন্সের নির্বাহী পরিচালক ইয়োকা মুইলউইক, ওয়াটার এইডের কর্মসূচি ও অ্যাডভোকেসি বিভাগের পরিচালক লিয়াকত আলী, একভোর পার্টনারশীপ ম্যানেজার অয়ন বিশ্বাস, ভার্কের সহকারী নির্বাহী প্রধান ইয়াকুব হোসেন, ডরপ এর গবেষণা পরিচালক মোহাম্মদ যোবায়ের হাসান, ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউপির সচিব হোসেন মাহবুব, সুশীল সমাজ প্রতিনিধি আক্তার হোসেন লিটন প্রমুখ।
Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

কাপেং ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে

কাপেং ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আদিবাসীদের উন্নয়নে জাতীয় নীতিমালার বাস্তবায়ন শীর্ষক প্রশিক্ষণ

রাজশাহী :: কাপেং ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ১৪ ও ১৫ নভেম্বর “আদিবাসী উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট জাতীয় ...