এই ছবিগুলো ঘরে টাঙাবেন না

art_66_সব ধরণের ছবি বা পেন্টিং ঘরে টাঙানো আপনার শিল্পরুচির পরিচয়কে উপরে তুলে ধরবে না।

বরং আপনার সম্পর্কে মানুষের মনে বিরূপ ধারণারও জন্ম দিতে পারে।

শুধু মানুষের মনই নয়, কিছু ছবি, শিল্পকর্ম আছে যা অবচেতন মনে আপনাকেও নেতিবাচকতার দিকে ঠেলে দেয়।

আপনার ব্যক্তিগত তথা সাংসারিক জীবনকেও বিধ্বস্ত করে তোলে। এসব কিন্তু ব্যক্তিগত মতামত নয়। বাস্তুশাস্ত্রই দিচ্ছে এসব হুঁশিয়ারি।

বাস্তুশাস্ত্রের মতে, ঘরের দেয়ালে টাঙানো ছবি প্রভাবিত করতে পারে আপনার জীবনকে। এমনকি এর প্রভাবে দাম্পত্য সম্পর্কও টালমাটাল হতে পারে।

মনোবিদরাও বলে থাকেন, ঘরে টাঙানো পেন্টিং ব্যক্তির মনে প্রভাব বিস্তার করে। সেই সূত্রে সম্পর্ক প্রভাবিত হওয়াটা মোটেই অস্বাভাবিক নয়।

যে জাতীয় পেন্টিংকে ঘরে টাঙাতে নিষেধ করছে বাস্তু এবং মনোবিদ্যা তা নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে এবেলা।

টু-মাস্ক পেন্টিং : হাসি-কান্না, ট্র্যাজেডি-কমেডির চিরায়ত মোটিফের পেন্টিং অনেকের কাছেই আদরের। কিন্তু এমন ছবি নাকি দাম্পত্য সম্পর্কের মধ্যে ছদ্ম আবরণকে আরোপ করে। দম্পতিদের পারস্পরিক বিশ্বাসকে নষ্ট করে। দাম্পত্য তিক্ততায় পর্যবসিত হয়।

বহুগামিতার ইঙ্গিতবাহী পেন্টিং : এক পুরুষের সঙ্গে একাধিক নারীর সম্পর্কের ইঙ্গিত রয়েছে এমন পেন্টিং ঘরে রাখা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। বাস্তুর মতে, এই ধরনের ছবিও দাম্পত্য-বিশ্বস্ততাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে।

যুদ্ধ বা মৃতদেহ সম্বলিত পেন্টিং : যুদ্ধ, রক্ত, মৃতদেহ, কামান, বন্দুক, দুর্দশাগ্রস্ত মানুষ ইত্যাদির ছবি শোওয়ার ঘরে টাঙানো বিধেয় নয়। এমন ছবি ঘরের বাসিন্দাদের আবচেতনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। দাম্পত্য সম্পর্কে দেখা দেয় নিরাপত্তার অভাব।

শিকার-সংক্রান্ত পেন্টিং : শিকারের দৃশ্য মূলত হিংসাকে ব্যক্ত করে। এমন দৃশ্য দাম্পত্য সম্পর্কেও হিংসাকে ডেকে আনতে পারে হলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। মনোবিদরাও একই মত পোষণ করেন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বছরে আত্মহত্যায় মারা যায় ৮ লাখ মানুষ

নিউজ ডেস্ক :: প্রত্যেক বছর প্রায় ৮,০০,০০০ মানুষ আত্মহত্যা করেন। । এমনটাই ...