ঈদের ছুটিতে যেতে পারেন- নক্ষত্রবাডি

নক্ষত্রবাডিষ্টাফ রিপোর্টার :: কর্মব্যস্ত নাগরিক জীবনে হাঁপিয়ে ওঠে অনেকেই খোঁজেন প্রশান্তির ছোঁয়া। একেবারে নিরিবিলি, মনোরম ও স্নিগ্ধ পরিবেশে ঈদের ছুটিতে পরিবারের সবাইকে নিয়ে দু-দণ্ড প্রকৃতির সান্নিধ্য পেতে পারেন। হ্যাঁ, বলছি। ঢাকার অদূরে গাজীপুরে অবস্থিত নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্টের কথা। প্রকৃতিপ্রেমী ও ভ্রমণপিপাসুদের কাছে অতি জনপ্রিয় নাম নক্ষত্রবাডী । এবার ঈদ-উল-আজহা উপলক্ষে বিশেষ আয়োজন থাকছে তারকা দম্পতি খ্যাতিমান চলচিত্র নির্মাতা ও অভিনেতা তৌকীর আহমেদ ও অভিনেত্রী  বিপাশা হায়াত এর স্বপ্নের  নক্ষত্রবাড়ি তে ।

নক্ষত্রবাড়ী গাজীপুরে অবস্থিত বেসরকারি রিসোর্টগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশী আকর্ষণীয় ও  সৌন্দর্যমণ্ডিত । প্রকৃতিপ্রেমীদের সব সুযোগ-সুবিধা সংবলিত ঢাকার খুব কাছে একটি রিসোর্ট বানানোর কথা চিন্তা করে অভিনেতা তৌকীর আহমেদ ও বিপাশা হায়াত দম্পতি 25 বিঘা জমির ওপর ‘নক্ষত্রবাড়ী’ নির্মাণ করেন। ২০১১ সালের ১৬ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয় নক্ষত্রবাড়ীর ।এর বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো, পুকুরের পানির ওপর কাঠ-বাঁশের সমন্বয়ে নির্মিত ১১টি কটেজ। যার বারান্দায় বসে রাতের জোছনা বা পূর্ণিমা দেখা যায়। শুধু তাই নয়, প্রকৃতির মাঝে হারিয়ে যেতে, অতি সৌন্দর্যের কটেজ এগুলো।

এখানে বসে শোনা যায় ব্যাঙের ডাক, ঝিঁঝিঁ পোকার ডাক, জোনাকির আলো ছড়ানো টিপ টিপ বাতি জ্বলা-নিভা। পুকুরের পশ্চিম পাশের পানির ওপর গজারী গাছ দিয়ে নির্মিত এসব কটেজ। কটেজগুলোর ওপর রয়েছে  টিনের ছাউনি। পুকুরের পূর্ব পাশে ব্রিটিশ আমলের দরজা-জানালা সংবলিত একটি ঘর রয়েছে। একটু পুবে রয়েছে সুইমিং পুল । রয়েছে আরও একটি হোটেল  বিল্ডিং । মাল্টিপ্লেক্স রয়েছে একটি কনফারেন্স রুম ও খাবার রেস্তোরাঁ, লাইব্রেরী , আর্ট গ্যালারী ।

রিসোর্ট এর রেস্তোরাঁয়  রয়েছে বাংলা, চাইনিজ, ইন্ডিয়ান, থাই, কন্টিনেন্টাল খাবার। এখানে বিভিন্ন ধরনের গাছ-গাছালি রয়েছে।  সার্বক্ষণিক ৫০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছেন  তারা সবসময় অতিথিদের সেবায় ব্যস্ত থাকেন। নক্ষত্রবাড়ী কর্তৃপক্ষ সবসময়ই অতিথিদের সব ধরনের সেবা দেওয়ার চেষ্টায় থাকে। এখানে আগতদের বেশির ভাগই প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসেন। প্রকৃতিকে খুব কাছ থেকে উপভোগ করতে চাইলে নক্ষত্রবাড়ী চলে আসতে পারেন।

নক্ষত্রবাডিনক্ষত্রবাডি রিসোর্ট এন্ড কনফারেন্স সেন্টার এর সহকারী বিক্রয় –বিপণন ও জনসংযোগ কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন আল সুমন জানান, আধুনিক স্থাপত্যশিল্প আর নয়নাভিরাম প্রকৃতি র মাঝে  নির্মিত রিসোর্টে জীবনকে আনন্দঘন করে তুলতে চমৎকার সব ব্যবস্থা রয়েছে। এখানে রয়েছে রেস্তোরাঁ, ওয়াটার বাংলো, সুইমিং পুল, জুস বার ,বিলিয়ার্ড ও  বোটিং এর ব্যবস্থা।

ভাড়া: পানির ওপর কটেজগুলো ২৪ ঘণ্টার ভাড়া ১০ হাজার ৭৫২ টাকা। বিল্ডিং কটেজের ভাড়া কাপলবেড ৮ হাজার ২২২ টাকা এবং টু-ইন বেড ৬ হাজার ৯৫৮ টাকা। দর্শনার্থীদের জন্য প্রবেশ মূল্য ৫০০ টাকা। এছাডা সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত থাকতে চাইলে ব্যয় করতে হবে মাত্র ২ হাজার পাঁচশত টাকা। যেখানে সকালের নাস্তা , দুপুরের বাফেট লাঞ্চ ও বিকেলের নাস্তা থাকছে ।  ডে লং প্যাকেজ ছাড়াও নক্ষত্রবাড়িতে থাকার জন্য এক রাত দুই দিনের প্যাকেজও রয়েছে।

আসন্ন ঈদের অগ্রিম বুকিং সম্পর্কে জানতে চাইলে , প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত জেনারেল ম্যানেজার ও হেড অফ সেলস এন্ড মার্কেটিং ম্যানেজার  আব্দুর রহমান রাসেল জানান, ঈদের এই আনন্দের ছুটি কাটাতে ভ্রমণ পিয়াসুদের জন্য থাকছে বিশেষ আকর্ষণ । অতিথিদের নিরাপদ ভ্রমণ নিশ্চিত করতে থাকবে বাডতি নিরাপত্তা ব্যাবস্থা ।

যেভাবে যাবেন : নিজস্ব পরিবহন বা যাত্রীবাহী বাসে করে গাজীপুর চৌরাস্তা হয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক থেকে রাজেন্দ্রপুর ক্যান্টনমেন্ট পার হয়ে সোজা পাঁচ কিলোমিটার গেলে বেইলি ব্রিজ, এরপরই পড়বে রাজাবাড়ী বাজার।

সেখানে থেকে ডানে মোড নিয়ে অগ্রণী ব্যাংককে পেছনে ফেলে দেড় কিলোমিটার সামনে চিনাশুখানিয়া গ্রামের বাঙালপাড়া এলাকায় স্বাগত জানাবে নক্ষত্রবাড়ি।  যা কাপাসিয়া-শ্রীপুরের সীমানা বেষ্টিত এলাকা।

আপনার অগ্রিম বুকিং এর জন্য যোগাযোগ করুন  মহাখালী ডিওএইসএস এর  বাডি নং ২৬৮, (তৃতীয় তলা) , রোড নং ১৯ এ  অবস্থিত ঢাকা কর্পোরেট হেড অফিসে । মোবাইলে কল করে বুকিং এবং বিকাশ ও  ব্যাংক ট্রান্সফারের মাধ্যমে অগ্রিম মুল্য পরিশোধ এর সুযোগ ও আছে । বিস্তারিত জানার জন্য কল করুন: ০১৫৫১ ২২২২১১, ০১৭৭২২২৪২৮১-৮৪। ই-মেইল: nokkhotrobari@gmail.com, ওয়েসাইট এ অনলাইন বুকিং এর ব্যাবস্থা রাখা হয়েছে । www.nokkhottrobari.com .

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রাজীবের সুরে অনিতা-সুমন

রাজীবের সুরে অনিতা-সুমনের ‘বন্ধু হতে চাই’

স্টাফ রিপোর্টার :: রাজীব হোসাইনের সুর ও সঙ্গীতে নতুন একটি দ্বৈত গানে ...