অন্ধ মেয়ে ‘ময়নার ইতিকথা’

অন্ধ মেয়ে 'ময়নার ইতিকথা'নজরুল ইসলাম তোফা:: অন্ধ মেয়ে “ময়না”। ময়না কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন, বর্তমানের এমন আলোচিত এবং নবাগত মিষ্টি নায়িকা সানাই তার নাম। তিনি দেখতে অনেকটাই সুন্দরী! কিন্তু জীবন যাপনে বলা যায় খুবই সহজ-সরল একজন মেয়ে।এই সহজ কিংবা সরলতাকে পুঁজি করে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যক্তির লালসার জিহ্বা প্রদর্শিত হয় এমন এ সুন্দরী অন্ধ নায়িকা ময়না দিকে। সুতরাং অন্ধত্বকে দুর্বলতা মনে করেই যেন বিভিন্ন ফন্দি আঁটে সুযোগ সন্ধানীরা। এমনই এক নারী কেন্দ্রিক গল্পের করুন ক্লাইমেকস্ ‘ময়নার ইতিকথা’।

চমৎকার গানে এবং নাচের সমন্বয়ে ‘ময়নার ইতিকথা’ গত ১১ এপ্রিলের সকাল থেকেই গাজীপুরে ১ম কাজের শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। আবারও খুুুব শীঘ্রই বলা যায়, এ সিনেমার বাদ বাঁঁকি কাজের দ্বিতীয় লটের শুটিং শুরু হবে।

শুটিং লটের পরিকল্পনাকারি সুদক্ষ তরুণ চলচ্চিত্র পরিচালক “বাবু সিদ্দিকী” বলেছেন, যদিও আমরা ময়নার ইতিকথা সিনেমাটা নিয়ে আগাম কিছু তথ্য কখনোই দর্শকদের জানাতে চাই নি। কারণ ছবিতে যা রয়েছে সেটা অবশ্যই সিনেমা হলে গেলে জানবে অথবা দেখতে পাবে। ছবির গল্প কিংবা প্লট এগুলো আগে বলা সিনেমার জন্যই খুব একটা স্বাস্থ্যকর না।

যাই হোক, যেহেতু এই সব নিয়ে বিভিন্ন জনের বিভিন্ন রকমের স্পেকুলেশন দেখতে পাওয়া যায় নানা ধরনের পত্র পত্রিকায় এবং সোশ্যাল মিডিয়ায়, সে কারনেই এমন সিনেমার দু’একটি কথা দর্শকের কাছে পরিষ্কার করে দিতে চাই। এটি প্রথম সিনেমা হলেও বলতে চাই যে, কাজটি অনেক ভালোই হবে, আশাবাদী আমি, এই সিনেমাটি দর্শকদের অবশ্যই দেখতে ভালো লাগবে এবং মজা পাবে।

নারীকেন্দ্রিক এমন এই ছবিতে অভিনয় করে বেশ উচ্ছ্বসিত হয়ে আছেন অভিনেত্রী “সানাই”। নজরুল ইসলাম তোফাকে তিনি বলেছেন, ১১ তারিখ থেকে ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত টানা শুটিং করেছেন গাজীপুরে। একেবারেই বলা যায় যে, এমন কাজের এই শুটিং স্পট নিভৃত গ্রাম্য পরিবেশের মাঝে।

খুব শিগগির দ্বিতীয় লটের দৃশ্য ধারণ করতে যাবেন। একটু তার অতীত স্মৃতি চারণ করেই বলেছেন, এ ছবির একটি শটের জন্য তাঁকে যেন, দীর্ঘ ৫ ঘণ্টার মতো নোংরা পানিতে ভিজেই কাজ করতে হয়েছে। সানাই আরও বলেছেন, এত শ্রম আর অনেক কষ্টের পরও পুরো টিমের সহাযোগিতা পেয়ে প্রথম ধাপের শুটিং খুবই ভালোভাবে সমাপ্ত করেছেন।

‘ময়নার ইতিকথা’ সিনেমায় আরো প্রধান কয়েকটি চরিত্রে অভিনয় করছেন সংশোধন খ্যাত “রাসেল মিয়া”, সুপার হিরো সাখওয়াত সাগর, ইরা সিকদার, মাহমুদ হাসান ও শান প্রমুখ। এ চলচ্চিত্রটি কাহিনী এবং পরিচালক বাবু সিদ্দিকী। সংলাপ,চিত্রনাট্য ও গীত রচনায় আহমেদ ইউসুফ সাবের। লাইফ গোল্ড মিডিয়ার ব্যানারেই এই চলচ্চিত্র নির্মাণ হচ্ছে বলেই জানালেন এবং তার কর্নধার আজিম খান।

আবারও বাবু সিদ্দিকী জানালেন, ‘ময়নার ইতিকথা’ সকল শ্রেনীর মানুষের ভালো লাগবে। এটি মাটি ও মানুষের হৃদয়ের গল্প। তিনি প্রতিনিয়তই চলচ্চিত্রের মাধ্যমে সমাজ সেবা মুলক কার্যক্রমেই ব্যস্ত থাকতে চান। ময়নার ইতিকথার মাধ্যমে দেশ এবং সমাজের মাদক এবং যৌতুক নিরাময়ে বেশ ভূমিকাও রাখবে বলে মনে করেন। মাদক ও যৌতুকের বিরুদ্ধে এমন সিনেমায় অবশ্যই জনসচেতনতা গড়ে উঠবে।

 

 

লেখক: টিভি ও মঞ্চ অভিনেতা, চিত্রশিল্পী, সাংবাদিক, কলামিষ্ট এবং প্রভাষক।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রহিমা আক্তার মৌ

‘জল ও জীবন’

রহিমা আক্তার মৌ :: আমাদের প্রাণপ্রিয় নগরী ঢাকা বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত। অপ্রিয় ...